আপনার ফোন আরও সুন্দর করতে ৬টি মাইন্ডব্লোইং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ (নো রুট)

অনলাইন ডেস্ক
আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের থিম, আইকন, ওয়ালপেপার বা নেভিগেশন বারটা কি পুরোনো লাগছে? ফোন রুট করারও রিস্ক নিতে চাচ্ছেন না? তাহলে আপনার জন্যই এই অসাধারণ ৬টি মাইন্ডব্লোইং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ।

মূলত আপনার অ্যান্ড্রয়েডের একই লে-আউট, লুক, অ্যাপ ব্যবহার করে জন্মানো একঘেঁয়েমি কাটাতে চাইলে আমি অবশ্যই সাজেস্ট করব অ্যাপগুলো একবার ইন্সটল করে ট্রাই করে দেখতে। আর আরেকটা ব্যাপার হল, আজকে যেই অ্যাপগুলো নিয়ে আলোচনা করব এর সবগুলোই আন্ডাররেটেড।

মাইন্ডব্লোইং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ
আইকন প্যাক, ওয়ালপেপার, ন্যাভবার এনিমেশন এই সব কিছু চেঞ্জ করতে চাইলে আর বসে না থেকে পড়ে ফেলুন আর্টিকেলটা, ঠিক করুন কোনগুলো ট্রাই করতে চান আর ইন্সটল করে বদলে নিন আপনার মোবাইলের চেহারা।

আউল ব্রাউজার
কোন ব্রাউজার ইউজ করছেন এই মুহুর্তে? ইউসি ব্রাউজার, অপেরা নাকি অন্য কিছু? যেটাই করুন না কেন, আউল ব্রাউজার ট্রাই না করলে ট্রাই করে দেখতে পারেন। আপনার প্রাইভেসি সম্পূর্ণ মেইনটেইন করে ফাস্ট ব্রাউজিং এক্সপেরিয়ান্স পেতে চাইলে আউল ব্রাউজার বেশ ভাল একটি অপশন।

অ্যান্ড্রয়েডের জন্য ৫টি ফ্রি কল রেকর্ডার অ্যাপস্
এছাড়া, আপনি যে কোন সেভড্ সাইটকে হোমস্ক্রিনেও সেট করে রাখতে পারবেন। এডব্লক অপশন পাওয়ার পাশাপাশি অনেক দিন ধরে একই ব্রাউজারে থাকার একঘেয়েমীটাও কাটবে। প্লেস্টোরেও এর রেটিং খারাপ নয়, ৪.২।

ছবিঃ সংগৃহীত

ন্যাভবার অ্যানিমেশন
মোবাইল কেনার পর থেকে একই ন্যাভবার অ্যানিমেশন দেখে দেখে বিরক্ত হয়ে গেছেন? আবার যদি রুট করার ঝামেলায়ও যেতে না চান, তাহলে আপনার জন্যই এই অ্যাপটি। এই অ্যাপটি দিয়ে অ্যানিমেশন সেট করে আপনি আপনার ন্যাভবারের চেহারা পালটে দিতে পারেন। তাছাড়া আপনি ন্যাভবারের এনিমেশনের স্পীড, কালার সবই কাস্টমাইজ করতে পারবেন এই অ্যাপ দিয়ে। আর এনিমেশন কখন ট্রিগার হবে তাও ঠিক করতে পারবেন এই অ্যাপের সেটিংস থেকে।

ইউজার রিভিউ থেকে এটাও দেখা যায় যে এই অ্যাপ আপনার মোবাইলের পার্ফরমেন্সের উপর লক্ষনীয় প্রভাব ফেলে না। তবে, একটা সমস্যা হল আপনার মোবাইল যদি এন্ড্রয়েড ৫.০ এর নিচে হয়, তাহলে অ্যাপটি আপনার ফোন সাপোর্ট করবে না।

ছবিঃ সংগৃহীত

এনাদার উইজেট
এনাদার উইজেট আরেকটি অসাধারণ মাইন্ডব্লোইং এন্ড্রয়েড অ্যাপ। সুন্দর আউটলুকের এই উইজেটটি আপনার মোবাইলের ক্যালেন্ডার ইভেন্টগুলো আর ওয়েদার ফোরকাস্ট ইন্টেলিজেন্টলি একসংগে সামারাইজ করে দেখায়। এমনকি, আপনি এখানে উইজেট কন্টেন্ট কাস্টমাইজ করারও সুযোগ পাবেন।

অ্যান্ড্রয়েডের জন্য ৬টি সেরা স্ক্রিন রেকর্ডার অ্যাপ
ডেভেলপাররা নিজেরাই দাবী করছে তারা অ্যাপটার পার্ফরমেন্স ভাল করতে আর বেটার সার্ভিস আর নতুন নতুন ফিচার দিতে কাজ করে যাচ্ছে। এনাদার উইজেট অ্যাপটি অবশ্য এ মুহুর্তে বেটা ভার্শনে আছে। তবে খুব দ্রুতই এর মূল ভার্শন বের হবে। প্লেস্টোরে অ্যাপটির রেটিং ৪.০।

ছবিঃ সংগৃহীত

সানো আইকন প্যাক
আপনি কি একটা অসাধারণ কিন্তু লাইট ওয়েটের আইকন প্যাক খুঁজছেন? তাহলে, সানো আইকন প্যাকটা একবার অবশ্যই চেষ্টা করে দেখা উচিত। কি? লাইট ওয়েট শুনে ভাবছেন ৪-৫টা আইকন স্টাইল থাকবে? মোটেও না। সানো আইকন প্যাকে আপনি পাবেন প্রায় ৩৫০০ স্টাইলের আইকন।

আর কালারও কাস্টোমাইজ করতে পারবেন প্রতিটি আইকনের জন্য। মানে চাইলেই আপনি আপনার ফোনবুক আইকন আর ম্যাসেজ বক্সের আইকন আলাদা রং-এর রাখতে পারবেন। এতে আপনার ফোনের চেহারা বদলে যাবে অনেকটাই। অবশ্য প্লেস্টোরে আপটি পাবেন টাইনি আইকন প্যাক নামে। যেকোন এন্ড্রয়েড ভার্শনই সাপোর্ট করবে এই আইকন প্যাক।

ছবিঃ সংগৃহীত

আইকন প্যাক মিক্সার
নিশ্চয়ই ভাবছেন আরেকটা আইকন প্যাক কেন! কারণ, এই আইকন প্যাকটা অন্যগুলোর চেয়ে ফাংশনালিটির দিক থেকে কিছুটা আলাদা। এই আইকন প্যাকটি আপনার মোবাইলে ইন্সটল করা আইকন প্যাকগুলোর থেকে বেস্ট আইকনগুলোকে নিয়ে আপনার হোমস্ক্রিন আর মেন্যুর জন্য আইকন সাজাবে। তাতে অবশ্য আপনাকে আলাদা আলাদা আইকন প্যাক থেকে আইকন সিলেক্ট করে দিতে হবে, যা একটু সময়সাধ্য মনে হতে পারে।

চেহারা পাল্টে মজা করুন ফেস সোয়্যাপ অ্যাপ দিয়ে
কিন্তু আপনার যদি একাধিক আইকন প্যাকের আলাদা আলাদা আইকন স্টাইল পছন্দ হয়, তাহলে সবগুলোকেই একই সময়ে আপনার মোবাইলে রাখার জন্য খুব ভাল একটা অপশন হতে পারে এই আইকন প্যাক। আর এই আইকন প্যাক দিয়ে আপনি আইকনগুলোকে পিএনজি ফাইল হিসেবে এক্সপোর্টও করতে পারবেন। প্লেস্টোরে আইকন প্যাক মিক্সারের রেটিং ৩.৭।

ছবিঃ সংগৃহীত

ড্রয়েডি ওয়ালপেপারস
আপনি যদি ঘন ঘন ওয়ালপেপার চেঞ্জ করতে পছন্দ করেন, তাহলে ড্রয়েডি ওয়ালপেপার খুবই ভাল একটি অপশন। এতে আপনি ইভেন আপনার লার্জ স্ক্রিনের জন্যও পাবেন এইচডি (১০৮০পি) ওয়ালপেপার এবং আল্ট্রা এইচডি (৪কে) ওয়ালপেপার। তাছাড়া, এদের সবগুলো ওয়ালপেপার এরা ম্যানুয়ালি ট্রিম করেছে যাতে আপনার স্ক্রিনে বেটার ফিট করে।

ড্রয়েডি ওয়ালপেপারস আপনার মোবাইলের ব্যাটারি আর পার্ফরমেন্সের উপরও কম চাপ ফেলবে। আর অসংখ্য ওয়ালপেপার চয়েসও পাবেন এই অ্যাপে। আর ইউজ করাও খুব সহজ। প্লেস্টোরে এর রেটিং-ও ৪.৭।

ছবিঃ সংগৃহীত

যাই হোক, এই ছিল মাইন্ডব্লোইং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ নিয়ে আজকের মত আমাদের আয়োজন। এই অ্যাপগুলোর মধ্যে কোনটা ব্যবহার করে থাকলে কমেন্ট বক্সে আপনার ইউজার রিভিউ জানাতে ভুলবেন না। আর পোস্টটি শেয়ার করুন, আপনার বন্ধুদেরকেও জানান এই অ্যাপগুলো সম্পর্কে।