পলাশে জাসদের জনসভায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু : কামাল হোসেনরা গণতন্ত্রকে জিম্মি করে খালেদার মুক্তির দরকষাকষি করছে


তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘কামাল হোসেনরা রাজনৈতিক ডিকবাজী দিয়ে খালেদার সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। তারা গণতন্ত্রকে জিম্মি করে খালেদার মুক্তির দর কষাকষি করছেন। কিন্তু যতই দর কষাকষি করেন না কেন, অপরাধী খালেদা জিয়া মুক্তি পাবে না।’
গতকাল মঙ্গলবার বিকালে পলাশের ঘোড়াশাল ময়েজ উদ্দিন সেতু টোল স্টেশন সংলগ্ন মাঠে পলাশ উপজেলা জাসদ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।


তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা যখন গত ১০ বছর ধরে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছি তখন কামাল হোসেনরা হাত গুটিয়ে বসে ছিল। আমাদের সহযোগিতা করে নাই। তারা মুখে মুখে এত ভাল কথা বলে কিন্তু তারা মূলত জামায়াতের ধূসর। তাই তারা রাজনৈতিক ডিগবাজীর নামে চক্রান্তে লিপ্ত হয়ে এখন রেজিষ্টারকৃত দুর্নীতিবাজ, জামায়াত, জঙ্গী ও রাজাকারের মায়ের দল বিএনপির সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। আগামি ২০১৮ সালের নির্বাচন অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তারা মূলত এই নির্বাচনকে বানচাল করতে চায়। জঙ্গী সন্ত্রাসের মা খালেদাকে আর তারেককে বাংলার রাজনীতিকে ফেরত আসতে দেব না।’
তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘জোটের ছায়াতলে থেকে গুন্ডামি চলবে না, ভাল হয়ে যান। শেখ হাসিনার পাশে কোন দুর্নীতিবাজ, অযোগ্যরা থাকবে না। আপনারা আমার জায়েদুল কবিরের পক্ষে কাজ করেন। আর এই আসনে মঈন খান যেহেতু বিএনপির লোক। তাঁর মানে তিনি রাজাকার ও জামায়াতের প্রতিনিধি। আপনারা কি জঙ্গী সন্ত্রাস দেখতে চান? যদি দেখতে না চান তাহলে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নৌকা মার্কায় ভোট দিন।’


পলাশ উপজেলা জাসদের সভাপতি মোবারক আলীর সভাপতিত্বে অনুুষ্ঠিত জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন, জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী, শওকত রায়হান, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, জেলা জাসদের সভাপতি ও নরসিংদী ২ (পলাশ) আসনে মহাজোটের মনোনয়ন প্রত্যাশী জায়েদুল কবির প্রমুখ।