খালেদা জিয়ার পর এবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন ওবায়দুল কাদের

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৬:২৬ এএম | আপডেট: ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৬ এএম


খালেদা জিয়ার পর এবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন ওবায়দুল কাদের
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আগামীকালের রায় নিয়ে টানটান উত্তেজনার মধ্যে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আজ বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষণা দেওয়ার পর সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হচ্ছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বুধবার সকালে জানানো হয়েছে, ওবায়দুল কাদের সন্ধ্যা ৬টায় দলের সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন। আওয়ামী লীগের দপ্তার সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণার আগের দিন আজ বুধবার বিকেল ৫টায় রাজধানীর গুলশানে রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। গত মঙ্গলবার রাতে গুলশান কার্যালয়ের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান। কাল বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করবেন বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান। এ মামলার অন্যতম আসামি খালেদা জিয়া। অন্য আসামিরা হলেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান। [caption id="attachment_1641" align="alignnone" width="730"] ছবি: সংগৃহীত[/caption] দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ সাতজনের বিরুদ্ধে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার এজাহারে বলা হয়, ১৯৯১ সালে খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে এতিম তহবিল নামে নতুন একটি হিসাব খোলা হয় এবং বিদেশ থেকে সাড়ে চার কোটি টাকা আসে ওই হিসাবে। পরে ওই তহবিল থেকে দুই কোটি ৩৩ লাখ টাকা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে স্থানান্তর করা হয়। অভিযোগ আনা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে সেখান থেকে আসামিরা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন। মামলা দায়েরের ১৩ মাস পর ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক হারুন-অর-রশিদ।