কপি পেস্ট জব কি? কোথায় পাবেন ও কিভাবে করবেন কপি পেস্ট জব?

ছবিঃ সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক

বাড়িতে বসে টাকা আয় করার অনেকগুলো উপায়ের মধ্যে একটি হচ্ছে কপি পেস্ট জব। এই কাজটি কিছুটা ডাটা এন্ট্রি জবের সাথে মিলে যায়। যদিও কপি পেস্ট জব কিছুটা ভিন্ন, তবু ডাটা এন্ট্রি জবের সাথে এটি সহজেই তুলনা করা যায়। এটি একটি নন-টেকনিক্যাল জব এবং এই কাজটি করতে কোনো রকম শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন নেই। কোনো রকম এক্সপেরিয়েন্স ছাড়াই আপনি কপি-পেস্টের কাজটি করতে পারবেন।

এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে কপি পেস্ট জব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা জানতে পারবেন কপি পেস্ট জব মূলত কি এবং কিভাবে আপনি ভালো জব খুঁজে পাওয়ার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

কেনো সবাই কপি পেস্ট জব খোঁজে?


ছবিঃ সংগৃহীত

আমি এখানে আপনাকে সত্যিটা বলতে চাই। দেখুন, কপি পেস্ট জব বা যে কোনো ধরনের ডাটা এন্ট্রি জব এমন কোনো মানুষের জন্য নয়, যারা উচ্চাকাঙ্ক্ষী বা জীবনে অনেক ভালো কিছু করার ক্ষমতা রাখেন। যদি আপনি জীবনে ভালো কিছু করতে চান, তাহলে আমি আপনাকে বলবো অন্যান্য অনলাইন জব করার জন্য।

অনলাইন বা অফলাইনে করতে পারেন এ ১৫টি ডাটা এন্ট্রি জব
যাইহোক, আপনি যদি হয়ে থাকেন গৃহিণী, ছাত্র, অবসর প্রাপ্ত, বেকার অথবা আপনি যদি এক্সট্রা ইনকাম করার জন্য কিছু সহজ কাজ খুঁজে থাকেন, তাহলে কপি পেস্ট জব আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো আয়ের উৎস। যদি আপনার বাড়িতে একটি কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশন থাকে, তাহলে ঘরে বসে খুব সহজেই আপনি কপি-পেস্টের কাজটি করতে পারবেন।

এই কাজটি তাদের করতে ভালো লাগবে, যারা উচ্চাকাঙ্ক্ষী নয় এবং শুধু তাদের মোবাইল ও ইন্টারনেট বিল পে করার জন্য কোনো কাজ খুঁজছেন।

কপি পেস্ট জব কেনো ভালো?


ছবিঃ সংগৃহীত

এই কাজটি খুবই ভালো, আমি আপনাদের জন্য কিছু কারণ উল্লেখ করছি।

বাড়িতে বসে কাজ করা যায়
অবশ্যই আপনি বাড়িতে বসেই কাজটি করতে পারবেন। দিনের খুব বেশি সময় আপনাকে ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করতে হবে না।

কোনো এডুকেশনাল কোয়ালিফিকেশন বা কাজের দক্ষতা ছাড়া
অন্যান্য অনলাইন জব যেমন ডাটা এন্ট্রির মতোই এখানেও আপনার কোনো ইডুকেশনাল কোয়ালিফিকেশন বা কাজের দক্ষতা লাগবে না।

কঠিন কোনো কাজ নয়
এটি মোটেও কঠিন কোনো কাজ নয়, এখানে আপনি নিজেই আপনার বস এবং এটি অনলাইনের সবচেয়ে সহজ কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম একটা।

ভালো আয়
খুব বেশি না হলেও, এখানে আপনি অল্প কাজ করে আপনার পকেট খরচ তোলার মত কিংবা ছোট ছোট বিল দেয়ার মত ভালো আয় করতে পারবেন।

কিভাবে কপি পেস্ট জব করবেন?
কপি পেস্ট জবের কিছু ভালো দিক জানলেন, এবার জানুন কিভাবে করবেন কপি পেস্ট জব।

আপনার কাজ কি হবে?
অধিকাংশ সময় কপি পেস্ট জব হয়ে থাকে কোনো কনটেন্ট এক ফাইল থেকে কপি করা এবং অন্য ফাইলে পেস্ট করা। যেমন আপনার কাজ হতে পারে কোনো ডাটা একটি এমএস ওয়ার্ড ডকুমেন্ট থেকে কপি করে অন্য একটি এমএস ওয়ার্ড ডকুমেন্টে পেস্ট করা।

যে কোনো রকম ডাটা হতে পারে, যেমন কারো নাম, ইমেইল অ্যাড্রেস, হোম অ্যাড্রেস ইত্যাদি। তবে আপনাকে অবশ্যই এক্সেল এবং ওয়ার্ড ডকুমেন্টের বেসিক ফর্মেটিং জানতে হবে।

জেনে নিন আপনার জন্য ফাইভারে কি কি ফ্রি-ল্যান্সিং কাজ রয়েছে
যাইহোক, আপনাকে প্রতিদিন ১০০ এর বেশি ডকুমেন্ট শেষ করতে হবে। কপি পেস্ট জব এবং ডাটা এন্ট্রি জব প্রায় একই। আসলে কপি পেস্ট জব শুনতে যতটা সহজ মনে হয় তা কিন্তু নয়, আপনাকে প্রতিদিন অনেক ডকুমেন্ট শেষ করতে হবে।

কপি পেস্ট জব টেকনিক্যাল না হলেও কাজের চাপ একটু বেশি। আপনাকে অনেক সময় ধরে কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করতে হবে, বিশেষ করে আপনি যদি ভাল পরিমাণ আয় করতে চান।

ভিন্ন রকমের কপি পেস্ট জব
বেশি ধারণা পেতে হলে আপনাকে ভিন্ন রকমের কপি পেস্ট জবস সম্পর্কে জানতে হবে।

ওয়ার্ড টু পিডিএফ
আপনাকে একটি ওয়ার্ড ডকুমেন্ট থেকে ডাটা কপি করে অন্য একটি ওয়ার্ড ডকুমেন্টে পেস্ট করে এটিকে পিডিএফ ফাইলে কনভার্ট করতে হবে।

এক্সেল টু ওয়ার্ড অথবা এক্সেল টু এক্সেল
এখানে আপনাকে ডাটা কপি করতে হবে এক্সেল স্প্রেডশিট থেকে ওয়ার্ড ডকুমেন্টে অথবা এক্সেল থেকে এক্সেল স্প্রেডশিটে।

ভিজুয়্যাল স্টুডিও ফ্রম কপি পেস্ট
এখানে আপনাকে একটি ফরমে ডাটা পেস্ট করতে হবে, ডাটাগুলো হতে পারে নাম, ইমেইল, হোম অ্যাড্রেস ইত্যাদি।

এইচটিএমএল ফরম টেস্টিং জব
আপনাকে এইচটিএমএল ফরম ফিল আপ করতে হবে।

কিভাবে কপি পেস্ট জবস খুঁজে পাবেন?
এই আর্টিকেলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পার্ট হলো এটি। কপি পেস্ট জব খুঁজে পাওয়ার অনেক উপায় থাকলেও আপনার প্রয়োজন একটি ভালো কপি পেস্ট জব যেখানে আপনাকে ধোঁকা দেয়া হবে না। কারণ অনেক জব খুঁজে পাবেন যেখানে আসলে ধোঁকা দেয়া হয়, কাজ করিয়ে নিয়ে পেমেন্ট দেয়া হয় না।

আপনি যখন কোনো কোম্পানিতে কাজ শুরু করতে যাবেন তখন অবশ্যই আপনাকে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে হবে তাদেরকে।

আপনি গুগলে সার্চ করতে পারেন, আপনি এখন গুগলে গিয়ে “Copy Paste Jobs” লিখে সার্চ করুন, হয়তো আপনি অনেকগুলো কোম্পানি খুঁজে পেয়েছেন। একটি কোম্পানি ইচ্ছামতো বেছে নিন। তাদের সাইটে দেখবেন যোগাযোগ করার জন্য কন্টাক্ট নাম্বার বা ইমেইল অ্যাড্রেস দেয়া আছে।

নির্ভরযোগ্য পিটিসি সাইট চেনা কি সম্ভব – চলুন দেখে নেই
আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করুন, কথা বলুন, তাদের কোম্পানিতে কতজন লোক কাজ করছে জিজ্ঞেস করুন। কখনোই তাদের সাথে কথা না বলে কোনো রকম টাকা পয়সা দিতে যাবেন না। আপনি এই কোম্পানিটি নিয়ে ভালো ভাবে রিসার্চ করুন, দরকার হলে অন্য কারো সাহায্য নিন।

এছাড়াও আপওয়ার্ক, ফিয়েভারের মত বিভিন্ন অনলাইন ফ্রি-ল্যান্সিং সাইটে এই ধরনের কাজ খুঁজতে পারেন। আউটসোর্সিং এর জন্য নামকরা এই ওয়েবসাইটগুলো সম্পূর্ণ নিরাপদ, এগুলোতে কপি পেস্ট বলেন আর যে কাজই বলেন, সবকিছুই নিরাপদ, এগুলোতে আপনাকে কেউ ঠকাতে পারবে না।

কত টাকা আয় করতে পারবেন?
এটি মূলত নির্ভর করে আপনি কতটুকু কাজ করছেন তার উপর। এখন আপনি যদি বেশি সময় দিয়ে বেশি পরিমাণ কাজ করতে পারেন তাহলে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়াও এটি আপনার কোম্পানির উপর যে কোম্পানিতে আপনি জব করছেন তাদের পেমেন্ট রেটের ওপরও কিছুটা নির্ভর করে।

তবে আমি আপনাকে আনুমানিক একটি ধারণা দিতে পারি। আপনাকে ২ থেকে ৩ মিনিট কাজের জন্য ৩ টাকা থেকে ৪ টাকা পর্যন্ত দিতে পারে।

তবে আপনি যদি বড় কোনো প্রজেক্ট করেন সেক্ষেত্রে ১০০০০ টাকা থেকে ১৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন। এটি কাজের উপর নির্ভর করে থাকে।

আর আপনাকে অবশ্যই কাজ শুরু করার আগে কোম্পানির সাথে ভালো করে এ-সব বুঝে নিতে হবে এবং সত্যি টাকা পাবেন কিনা সেটা নিশ্চিত করে নিতে হবে।

কপি পেস্ট জবের কিছু সমস্যা
এই কাজ করে আয় করা দিন দিন কঠিন হয়ে যাচ্ছে, কারণ অনেক সময় আমরা খবরের কাগজে যে-সব কপি পেস্ট জব এর অ্যাড দেখি এর অধিকাংশ হয় প্রতারণা। তারা আপনার কাছ থেকে রেজিস্ট্রেশনের জন্য টাকা চেয়ে নিয়ে পরে আপনাকে কোনো কাজই দিবে না। তাই আপনাকে একটি আসল কপি পেস্ট জব খুঁজে পেতে কষ্ট করতে হবে।

আমি আপনাকে কোনো কোম্পানির নাম বলে দিবো না কারণ তারা কখন ভ্যানিশ হয়ে যাবে ঠিক নেই। তাই আপনাকেই খুঁজে বের করে নিতে হবে আসল কপি পেস্ট জব।