জাতীয় পর্যায়ে শীর্ষে নরসিংদীর ১’শ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় পর্যায়ে শীর্ষ স্থান (জেলা পর্যায়ে) দখল করেছে নরসিংদীর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল। দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে নরসিংদী সদর হাসপাতাল, তৃতীয় যশোরের ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল, পাবনা ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ও কুড়িগ্রাম জেলা হাসপাতাল। এছাড়া সিভিল সার্জন পর্যায়ে শীর্ষ পাঁচের মধ্যে রয়েছে যশোর, চুয়াডাঙ্গা, পঞ্চগড়, ঝিনাইদহ ও নরসিংদী।
এ উপলক্ষে ১৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেশের এসব সরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো: নাসিম। এসময় নরসিংদী জেলা হাসপাতালের পক্ষে অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন, সিভিল সার্জন সুলতানা রাজিয়া ও নরসিংদী জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা এম.এন মিজানুর রহমান।


অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক স্বাস্থ্যবিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাংলাদেশ প্রতিনিধি ডা. বারডন জং রানা এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
দেশের স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজে গতি আনতে শীর্ষ সেবাদানকারীদের পুরস্কৃত করছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছর সরকারি বিশেষায়িত, মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা, উপজেলা ও কমিউনিটি হাসপাতালগুলোকে পুরস্কৃত করা হয়। গত বছর স্বাস্থ্যসেবায় শীর্ষে উঠে আসে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। আর ২০১৫ সালে শীর্ষে থাকা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এ বছর তৃতীয় স্থানে নেমে এসেছে।
তালিকায় থাকা টারশিয়ারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় দিনাজপুরের এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। ২০১৫ সালে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ তৃতীয় স্থানে ছিল। দ্বিতীয় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থাকলেও এ বছর তালিকায় স্থান নেই।
বিশেষায়িত হাসপাতালগুলোর মধ্যে শীর্ষ তালিকায় স্থান পেয়েছে নিউরো সায়েন্স ইন্সটিটিউট হাসপাতাল। বিভাগীয় পর্যায়ে দেশের আটটি বিভাগের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে খুলনা ও রাজশাহী।
উপজেলা পর্যায়ে জাতীয় পর্যায়ে শীর্ষ পাঁচ হাসপাতালের মধ্যে প্রথম অবস্থান রয়েছে যশোরের চৌগাছা কেশবপুর, বরিশালের উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পাবনার ঈশ্বরদী ও কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। কমিউনিটি হেলথ সার্ভিসের মধ্যে শীর্ষ পাঁচ বরগুনার আমতলী, বামনা, ভোলার মনপুরা, বরিশালের উজিরপুর ও খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিজয়ী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) ছয়টি মানদন্ড হাসপাতালগুলোর সেবার মান যাচাইয়ের মাধ্যমে শ্রেষ্ঠত্ব নির্বাচন করা হয়েছে। মানদন্ড ছয়টি হচ্ছে- স্বাস্থ্য সেবা; ওষুধপত্র, যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তি; স্বাস্থ্যকর্মী; অর্থায়ন; স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থা এবং নেতৃত্ব ও সুশাসন। হাসপাতালগুলোর মূল্যায়নে মোট ৩০০ নম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। তিন ভাগে এ নম্বর বরাদ্দ ছিল।