নরসিংদীর ধনকুবেরদের পছন্দের পাঁচটি অবকাশ গন্তব্য

ছবিঃ সংগৃহীত

নিজেস্ব প্রতিবেদক

অবকাশ যাপনের কথা মনে হলেই সাথে সাথে মনে হয় সাধ্যের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ট কোন জায়গাটিতে যাওয়া যায়। আর ভাবুনত যাদের গন্তব্য নির্বাচনের সময় সাধ্যের কথা চিন্তা করতে হয় না তাদের কি মজা ! যাদের কাছে টাকা ও দূরত্ব কোনো বাঁধা নয়, তারা সৌন্দর্যের অন্বষণে পৃথিবীর যেকোনো জায়গায় যেতে পারেন। পৃথিবীর প্রত্যেকটি দেশের আলাদা আলাদা কিছু নৈস্বর্গীক সৌন্দর্য রয়েছে। বলাবাহুল্য, সময়ের সাথে সাথে বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার ধনকুবেরদের সাথে সাথে নরসিংদীর ধনকুবেরাও অনেক ভ্ৰমণপিপাসু হয়েছে। অবকাশ যাপনের জন্য নরসিংদীর শিল্পপতিরা দেশের অব্যন্তরে তথা দেশের বাইরে প্রচুর ভ্ৰমণ করেন।

বাংলাদেশ তথা নরসিংদীর শীর্ষ ধনীদের ভ্ৰমনের পাঁচটি পছন্দের স্থানের বর্ণনা দেয়া হলো:-

মালয়েশিয়া  :

মালয়েশিয়াকে নরসিংদীর শিল্পপতিদের সেকেন্ড হোম বললেও খুব বেশী একটা ভুল হবে না। বিয়ের কেনা-কাটা হোক অথবা অবকাশ যাপন হোকে মালয়েশিয়া শিল্পপতিদের প্রথম পছন্দ। পেট্রোনাস টাওয়ার, গেন্টিং হাইল্যান্ড, পুত্রাজায়া, পেনাং, পোর্ট ডিকসন ও লংকাবি হলো মালয়েশিয়ার অন্যতম দর্শনীয় স্থান। ক্লাবিং অথবা ক্যাসিনোর জন্যও মালয়েশিয়ার সারা পৃথিবীজুড়ে খ্যাতি রয়েছে।

ছবিঃ সংগৃহীত

ডাভোস, সুইজারল্যান্ড :

ছবিঃ সংগৃহীত

নৈস্বর্গীক সৌন্দর্যের ব্যাপারে কথা হবে আর তাতে সুইজারল্যান্ডের নাম থাকবে না তাতো হতেই পারে না। আর তা যদি হয় ডাভোস তাহলে তো কথাই নেই। ডাভোস সুইজারল্যান্ডের একটি ছোট কিণ্তু পরিপাটি শহর। এটি ” হেলথ রিসোর্ট ” নামে পৃথিবীজুড়ে বিখ্যাত। ডাভোসের মনমুগ্ধকর পরিবেশ, মৃদু বাতাস এবং উঁচু পাহাড় প্রচুর পরিমানে ট্যুরিস্ট আকৃষ্ট করে। যারা “স্পা” প্রেমী, তাদের জন্য ডাভোস সর্বোত্তোম অবকাশ যাপনের স্থান। ইউরোপের সবচেয়ে বড় “আইস এরেনাও” এখানে অবস্থিত। নরসিংদীর ধনকুবেরদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে ডাভোসের স্থান।

ছবিঃ সংগৃহীত

মালদ্বীপ:

ছবিঃ সংগৃহীত

মালদ্বীপ, সমুদ্রের উপর ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দ্বীপের সমুন্বয়ে গঠিত একটি ছোট দেশ। পর্যটনশিল্পের জন্য সারা পৃথিবীজুড়ে মালদ্বীপ বিখ্যাত। অবকাশ যাপনের জন্য খেলোয়াড় থেকে শুরু করে অভিনেতা, অভিনেত্রী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সবাই মালদ্বীপ যান। বিশেষকরে সদ্য বিবাহিত দম্পত্তির জন্য মালদ্বীপ স্বর্গের ওপর নাম। মালদ্বীপ নীলপানির সমুদ্র  ও সমদ্রের উপর শৈল্পিক রিসোর্টের জন্য প্রসিদ্ধ।

ছবিঃ সংগৃহীত

থাইল্যান্ড :

ছবিঃ সংগৃহীত

পৃথিবীর একমাত্র দেশ হলো থাইল্যান্ড যে দেশ কখনো কোনো দেশের উপনিবেশ ছিল না। থাইল্যান্ড বাংলাদেশ তথা নরসিংদী তথা সারা বিশ্বের মানুষের কাছে অত্যন্ত পছন্দের জায়গা। থাইল্যান্ডের গো গো বার, ফ্লোটিং মার্কেট, সাফারি পার্ক, পাতায়া, ফুকেট ও জেমস বন্ড আইল্যান্ড  অন্যতম দর্শনীয় স্থান। সেক্স ট্যুরিজমেও সারা পৃথিবীতে থাইল্যান্ডের নাম শীর্ষে।

ছবিঃ সংগৃহীত

দুবাই :

ছবিঃ সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব-আমিরাতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যা দুবাইয়ে। অন্যান্য শহরের মত দুবাই পরিশোধিত তেলের উপর নির্বরশীল নয়। পর্যটনশিল্পের জন্য এটি পৃথিবীজুড়ে বিখ্যাত। দুবাইয়ে রয়েছে পৃথিবীর প্রথম ৭ তারকা হোটেল (বুর্জ আল আরব), সর্বোচ্চ স্কাইস্ক্রেপার, শপিংমল, সর্বোচ্চ অব্যন্তরীন স্কিইং ও আরো অনেক কিছু । ভ্ৰমণপিপাসু মানুষের জন্য আরাম আয়েসের অপর নাম দুবাই।