তীব্র শৈত্যপ্রবাহ: আফগানিস্তান-পাকিস্তানে নিহত ৪৩

১৩ জানুয়ারি ২০২০, ০৫:৪৯ পিএম | আপডেট: ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৩২ পিএম


তীব্র শৈত্যপ্রবাহ: আফগানিস্তান-পাকিস্তানে নিহত ৪৩
ছবি: সংগৃহীত

টাইমস আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

তীব্র শৈত্যপ্রবাহে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে অন্তত ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রচণ্ড শীতের পাশাপাশি ভারি তুষারপাত এবং প্রবল বৃষ্টি ও বন্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। শনিবার আলজাজিরা জানিয়েছে, মহাসড়কে জমে থাকা বরফ সরিয়ে চলাচলের উপযোগি করতে এবং লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে।

শৈত্যপ্রবাহে পাকিস্তানে এ পর্যন্ত ২৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বেশিরভাগ নিহত হয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেলুচিস্তান প্রদেশে। প্রদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান ইমরান জারকন জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারী তুষারপাতে ছাদ ধসে ১৪ জন নিহত হয়েছে। বেলুচিস্তানের বিভিন্ন স্থানে ছয় ইঞ্চি বরফ জমে যায় তুষারপাতের কারণে। অনেক মহাসড়কে যান চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়। পূর্বাঞ্চলীয় পাঞ্জাব প্রদেশের জরুরি সেবা কর্মকর্তা আবদুস সাত্তার জানিয়েছেন, প্রচণ্ড বৃষ্টিতে সেখানে ছাদ ধসে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে আফগানিস্তানে নারী ও শিশুসহ ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে দক্ষিণাঞ্চলীয় কান্দাহার প্রদেশে। পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাতে একই পরিবারের ৫ জনসহ ৮ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাদেশিক পুলিশের মুখপাত্র আবদুল আহাদ ওয়ালিজাদা। শনিবার ভারি তুষারপাতে দুটি বাড়ির ছাদ ধসে এ ঘটনা ঘটে। এছাড়া ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে দক্ষিণাঞ্চলীয় হেলমান্দ প্রদেশে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভারি তুষারপাতের পাশাপাশি তুষার ধসের আশঙ্কায় আফগানিস্তানের অধিকাংশ মহাসড়কে চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ভারি তুষারপাতে কাবুল-কান্দাহার মহাসড়ক, সালাঙ্গ টানেলসহ বেশ কয়েকটি প্রধান মহাসড়ক বন্ধ রয়েছে।

এদিকে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের তাপমাত্রা নেমে এসেছে মাইনাস ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। রাস্তাঘাট বরফাবৃত হয়ে পড়ায় লোকজনের যাতায়াত বন্ধ ও কাজ করা খুব কঠিন হয়ে পড়েছে।


বিভাগ : বিশ্ব