রায়পুরায় গণস্বাক্ষরের আবেদনে বন্ধ হলো যাত্রাপালা

২৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩২ পিএম | আপডেট: ২১ জুন ২০২৪, ১০:৪১ এএম


রায়পুরায় গণস্বাক্ষরের আবেদনে বন্ধ হলো যাত্রাপালা

রায়পুরা প্রতিনিধি:

নরসিংদীর রায়পুরায় এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষরে করা আবেদনে বন্ধ হয়ে গেছে যাত্রাপালার আয়োজন। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার উত্তর বাখরনগর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামে এই যাত্রাপালা বন্ধ করে উপজেলা প্রশাসন। এর আগে দুপুরে গণস্বাক্ষরে যাত্রাপালা বন্ধের আবেদন করেন বাহাদুরপুর জামিয়া ইসলামিয়া ফজলুল উলূম মাদরাসা ও এতিমখানার প্রিন্সিপাল উসমান গণি।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই বাহাদুরপুর বাজার ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে বাজারের পাশের খোলা মাঠে যাত্রা মঞ্চ ও প্যান্ডেল করা হয়। আজ সোমবার রাতে সেখানে মঞ্চায়িত হওয়ার কথা নাটক ও যাত্রাপালা "আলোমতি প্রেম কুমার"।

যাত্রাপালার প্যান্ডেলটির পাশাপাশি দুটি মাদরাসার অবস্থান হওয়ায় যাত্রাপালা বন্ধ করার পক্ষে মত দেন ইসলাম ধর্মের স্থানীয় মুরুব্বীরা ও মাদরাসা কর্তৃপক্ষ।

সোমবার দুপুরে এ বিষয়ে গণস্বাক্ষরসহ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ দেন মাদরাসার প্রিন্সিপাল উসমান গণি। পরে পুলিশ গিয়ে আয়োজক কমিটিকে মঞ্চ ও প্যান্ডেল সরিয়ে নিতে নিদের্শ দেন। বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা মো: শফিকুল ইসলাম ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল গিয়ে স্থানীয়দের বাঁধার কারণে মঞ্চ ও প্যান্ডেল উঠিয়ে দেন।

মাদরাসার প্রিন্সিপাল উসমান গণি বলেন, এই গ্রামে অনেক আলেম-ওলামা ও ধর্মপ্রাণ মানুষের বসবাস। বাহাদুরপুর বাজার ব্যবসায়ীরা খোলা মাঠে যাত্রাপালার আয়োজন করে। এর ঠিক পাশেই অবস্থিত দুটি মাদরাসা। এখানে যাত্রাপালা আয়োজন করায় ধর্মপ্রাণ সাধারণ মানুষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে এবং আইনশৃঙ্খলার অবনতির শঙ্কা রয়েছে। সেজন্য যাত্রা বন্ধের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর গণস্বাক্ষরসহ স্থানীয়দের সাথে নিয়ে লিখিত আবেদন করি।

আয়োজক কমিটির সদস্য এবং উত্তর বাখর নগর ইউপি’র ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আবু চাঁন মুঠোফোনে জানান, 'এসিল্যান্ড স্যার ও পুলিশ এসে সন্ধ্যায় যাত্রা বন্ধ করে গেছেন।

উত্তর বাখরনগর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ হাবিব বলেন, ওই এলাকার বেশির ভাগ মানুষ যাত্রা না হওয়ার পক্ষে। এ নিয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা হওয়ার আশংকা রয়েছে। পরে শোনলাম প্রশাসনের লোকজন এসে আয়োজন বন্ধ করে দিয়েছেন।

রায়পুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মো. আজগর হোসেন জানান, এ ব্যাপারে রায়পুরা থানার ওসি’র সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, যাত্রাপালার জন্য থানা থেকে কেউ অনুমতি নেয়নি। তাই সেখানে কিছু করার সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে আয়োজক কমিটিকে আমাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে সহকারি কমিশনার ও রায়পুরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গেছেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা মো শফিকুল ইসলাম বলেন, গণস্বাক্ষরসহ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সন্ধ্যায় পুলিশ সদস্যদের নিয়ে এলাকায় গিয়ে যাত্রা বন্ধসহ মঞ্চ ও প্যান্ডেল উঠিয়ে দেয়া হয়েছে।


বিভাগ : বিনোদন


এই বিভাগের আরও