রায়পুরায় যান্ত্রিকভাবে ধান কাটা কার্যক্রমের উদ্বোধন

২৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:০০ পিএম | আপডেট: ১৪ মে ২০২১, ০৬:১০ এএম


রায়পুরায় যান্ত্রিকভাবে ধান কাটা কার্যক্রমের উদ্বোধন

হারুনুর রশিদ:

নরসিংদীর রায়পুরায় কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় সমলয়ে চাষাবাদ ব্লক প্রদর্শনীতে যান্ত্রিকভাবে ধান কাটা কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকালে উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নের খাকচক কৃষি মাঠে এই বোরো ধান কর্তনের উদ্বোধন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আজগর হোসেনের সভাপতিত্বে ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খানের পরিচালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: আবদুস ছাদেক। অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার ড.মাহবুবুর রশিদ, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক পিপি দিপক কুমার দাশ, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম, রায়পুরা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো: মোস্তফা খান, উপ-কৃষি কর্মকর্তা মো আবুল কালম আজাদ প্রমূখ।

উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে প্রদর্শনীটিতে গত ২৬-২৭ ডিসেম্বর ট্রে'র মাধ্যমে বীজ উৎপাদন করা হয়। ২১ জানুয়ারী উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নে রাইস প্লান্টারের মাধ্যমে একসাথে ৫০ একর জমিতে বোরো ধানের চারা লাগানোর কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।

কৃষকদের মাঝে ব্যাপক আগ্রহে খাকচর গ্রামের ৫০ একর জমিতে ৮৫জন কৃষকদের মাঝে ব্লক প্রদর্শনী কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এসময় বীজ, চারা রোপণ, ধান কাটা সর্বাত্মক পরামর্শ সহযোগিতা দেয়া হয়। সমলয়ে চাষীদের একর প্রতি ইউরিয়া ১শত, ডিএপি ৪৫, এমওপি ৫০, জিপসাম ৪৫, দস্তা ৪ কেজি, ছত্রাকনাশক কীটনাশক প্রদান করা হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খান বলেন, এই চাষাবাদ প্রকল্পে লাল টিয়া জাতীয় হাইব্রিড ধান পরীক্ষামূলক ভাবে রোপণ করে ভালো ফসল উৎপাদন করতে পেরেছি। সমলয়ের আওতায় কৃষকরা সরকারিভাবে রোপন, কর্তন, সার, বালাইনাশকসহ সর্বাত্মক পরামর্শ সহযোগিতা পেয়েছেন। রাইস প্লান্টারের মাধ্যমে ধান লাগানোর কারণে কৃষকদের একর প্রতি ১০- ১১ হাজার টাকা অতিরিক্ত ব্যয় সাশ্রয়ী হয়েছে। বোরো ফসল উৎপাদনে কৃষি যন্ত্রপাতির ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে।