নরসিংদীতে আগে পরে প্রতিমা বিসর্জন করা নিয়ে হামলায় যুবক আহত

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৫৫ পিএম | আপডেট: ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৭ পিএম


নরসিংদীতে আগে পরে প্রতিমা বিসর্জন করা নিয়ে হামলায় যুবক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নরসিংদীতে শারদীয় দুর্গাপূজার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনকে কেন্দ্র করে দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সেতু ঘোষ (৩০) নামের এক যুবক মারাত্মক আহত হয়েছেন। শহরের দুটি পূজামণ্ডপের মধ্যে কারা আগে প্রতিমা বিসর্জন দেবেন এ নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাত ১০টার দিকে পৌর এলাকার থানারঘাটে বিজয়া দশমী মঞ্চের সামনে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশের ধারণা, হয় দেবী দুর্গার হাতের ত্রিশুল নতুবা রশি কাটার ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে ওই যুবককে।

ঘটনায় সময় সেতু ঘোষের পেটের নিচের অংশে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করা হলে পাঁচ ইঞ্চি পরিমান কেটে গিয়ে নাড়িভুড়ি বেরিয়ে আসে। সেতু ঘোষ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন। আহত সেতু পৌর এলাকার ব্রাহ্মণ পাড়ার গৌতম ঘোষের ছেলে।

পুলিশ ও জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ বলছে, শহরের মেঘনা নদীর তীরে থানারঘাট এলাকার বিজয়া দশমী মঞ্চে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকেই একে একে সবগুলো পূজামণ্ডপের পূজারীরা প্রতিমা বিসর্জন করতে শুরু করেন। রাত ১০টার দিকে শহরের ব্রাহ্মণপাড়া-ঘোষপাড়া সর্বজনীন দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদ ও সেবাসংঘের পূজারীরা সেখানে এলে কে আগে প্রতিমা বিসর্জন করবেন তা নিয়ে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। সেতু শহরের ব্রাহ্মণপাড়া-ঘোষপাড়া সর্বজনীন দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের পূজারী।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, বিজয়া দশমী মঞ্চের কাছাকাছি পৌঁছে প্রতিমা বিসর্জনের অপেক্ষায় ছিল ব্রাহ্মণপাড়া-ঘোষপাড়া সর্বজনীন দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের পূজারীরা। কিছুটা আগে বিসর্জন দেওয়ার আশায় সেবাসংঘের পূজারীরা প্রতিমা নিয়ে এগিয়ে গেলে সেতুসহ কয়েকজনের সাথে তাদের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। ওই সময় সেবাসংঘের পূজারীদের মধ্যে কেউ একজন ধারালো কিছু দিয়ে সেতুর পেটে আঘাত করলে তার নাড়িভুড়ি বেরিয়ে পড়ে। কয়েকজনের সহযোগিতায় সেতুকে একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আরিফুল ইসলাম জানান, আহত সেতু ঘোষের পেটের নিচের দিকে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাতের কারণে প্রায় পাঁচ ইঞ্চির মত কেটে নাড়িভুড়ি বেরিয়ে গিয়েছিল। আমরা তাকে প্রাথমিক ট্রিটমেন্ট দিয়ে ঢাকায় পাঠিয়ে দিয়েছি।

ব্রাহ্মণপাড়া-ঘোষপাড়া সর্বজনীন দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জীবন দত্ত জানান, প্রতিমা নিয়ে আমরা ছিলাম সবার আগে। অনেক পেছন থেকে এগিয়ে এসে সেবাসংঘের পূজারীরা আমাদের আগে বিসর্জন দিতে চাইলে এ নিয়ে ঝামেলা বাঁধে। আমাদের  সেতুসহ অনেকেই এর প্রতিবাদ করে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সেতুকে প্রথমে পিঠে বাঁশ জাতীয় কিছু দিয়ে পরে পেটে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়। সেবাসংঘের পূজারী ও পৌরসভার কমিশনার তারাপদ সাহার উপস্থিতিতেই এসব ঘটনা ঘটে।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দীপক সাহা জানান, অপ্রীতিকর ওই ঘটনার পর আহত সেতুকে নিয়ে পৌরসভার সামনে বিজয়া দশমীর অনুষ্ঠানে বিচার চাইতে এসেছিলেন ওই মণ্ডপটির পূজারীরা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন ও পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য পৌর মেয়র কামরুজ্জামানকে দায়িত্ব দেন। তিনি দুই পক্ষকে নিয়ে বিষয়টির সমাধান করবেন।

নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামান জানান, এই ঘটনায় আমরা এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।