পলাশে বাল্য বিয়ে পণ্ড করলেন ইউএনও

০২ আগস্ট ২০১৯, ০৪:১০ পিএম | আপডেট: ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৫:৩৩ এএম


পলাশে বাল্য বিয়ে পণ্ড করলেন ইউএনও

পলাশ প্রতিনিধি ॥
নরসিংদীর পলাশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুমানা ইয়াসমিনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো রহিমা আক্তার নামের দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী। শুক্রবার (২ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের সরকারচর গ্রামে এ বাল্য বিয়ে পণ্ড করে দেয়া হয়।


এ সময় ওই ছাত্রীর বাবা-মা মুচলেকা দিয়ে অঙ্গীকার করে জেল জরিমানা থেকে রেহাই পেয়েছেন। রহিমা আক্তার সরকারচর গ্রামের আহম্মদ আলীর মেয়ে। সে জিনারদী ইউনিয়নের পারুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।


ইউএনও রুমানা ইয়াসমিন জানান, পারুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী রহিমা আক্তারকে বাল্য বিয়ে দিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারহানা আলীকে পাঠানো হয়। এসময় বাল্য বিয়ে বন্ধ করে স্কুলছাত্রী রহিমা আক্তারের মা-বাবার কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়। এতে তারা অঙ্গীকার করেন রহিমা আক্তারকে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না এবং লেখাপড়া চালিয়ে যাবেন।