রায়পুরায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে

০৪ আগস্ট ২০২১, ০৮:২০ পিএম | আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২৬ পিএম


রায়পুরায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রায়পুরার বাঁশগাড়িতে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে রায়পুরা থানায় মামলা করেন। ওই কিশোরী স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। তার পরিবারের অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে দুইজন মিলে ধর্ষণ করেছে।

এই ঘটনায় অভিযুক্ত দুই আসামী হলেন, রায়পুরা উপজেলার বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের দিঘলিয়াকান্দি গ্রামের হযরত আলীর ছেলে মো. সালামত উল্লাহ ওরফে সামছুল (২৫) ও জলিল মিয়ার ছেলে সাগর মিয়া (১৮)।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে ওই কিশোরীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল সাগর মিয়া। তাতে সে রাজি হচ্ছিল না বলে তার তার ওপর ক্ষুব্ধ ছিল সাগর। গত শনিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে ওই কিশোরীর বাড়িতে উৎ পেতে ছিল সাগর ও সামছুল। প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে বের হলে ওই কিশোরীর মুখ চেপে জোরপূর্বক টেনে নিয়ে যায় তারা। প্রায় ২০০ গজ দূরে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে ওই দুজন। পরে তার চিৎকারে পরিবারের সদস্যরা ঘর থেকে বের হয়ে আসলে পালিয়ে যায় তারা।

মামলার বাদী ও ওই কিশোরীর মা জানান, প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমার মেয়েকে তারা দুজন মিলে ধর্ষণের ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি তাদের বিচার চাই।

রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক দেব দুলাল দে জানান, মামলা হওয়ার পর ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এরই মধ্যে মামলার প্রধান আসামী সালামত উল্লাহ ওরফে সামছুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।