রায়পুরায় মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার ভাংচুরের অভিযোগ

২০ মে ২০১৯, ০২:৪০ পিএম | আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৪:২৫ এএম


রায়পুরায় মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার ভাংচুরের অভিযোগ

রায়পুরা প্রতিনিধি ॥
নরসিংদীর রায়পুরা পৌরসভার (৩নং ওয়ার্ড) কান্দাপাড়া এলাকায় নির্মিত শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বশিরুল ইসলাম স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারে ভাংচুর করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (১৮ মে) রাতে একদল বখাটে কর্তৃক এ ভাংচুরের ঘটনায় রায়পুরা থানাকে অবগত করা হয়েছে বলে জানান স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারের সভাপতি নূরুল আলম।


রায়পুরা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের তাত্তাকান্দা এলাকার মো. মোখলেছুর রহমানের ছেলে তোরাগ, আব্দুল জলিলের ছেলে সোহান, একই গ্রামের সাগর, মোক্তার, স্বপন ও সৌম্য এ হামলার ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।


স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইফতারের পর পাশ্ববর্তী তাত্তাকান্দা গ্রামের কিছু বখাটে ছেলে বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল যোগে এলাকাতে প্রবেশ করে। এসময় তারা নেশাগ্রস্থ অবস্থায় লোকজনকে ভাষায় গালমন্দ করতে থাকে। এক পর্যায়ে স্থানীয়রা ধাওয়া করলে তারা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে সংঘবদ্ধ হয়ে তারা আবারও এলাকায় প্রবেশ করে লোকজন কাউকে না পেয়ে লাঠি, ধারালো দা, কুড়াল দিয়ে শহীদ বশিরুল ইসলাম স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারে হামলা চালিয়ে টিনের বেড়া ও আসবাপত্র ভাংচুর করে এবং পাশের একটি মুদি দোকানে লুটপাট চালায়।


এ ব্যাপারে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বশিরুল ইসলাম স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারের সভাপতি নুরুল আলম জানান, সন্ধ্যার দিকে শুনেছি তাদের সাথে এলাকার কিছু লোকের ঝগড়া হয়। পরে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তারা স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারটিতে ভাংচুর চালায়।


পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কমিশনার আরিফুল হক বাবু এই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, একজন জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানের নামের স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারে যারা হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে তাদের কঠোর বিচার হওয়া দরকার।
এ ব্যাপারে রায়পুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসিনুল কাদির বলেন, এ ধরনের কোন অভিযোগ থানায় দেয়া হয়নি।