নরসিংদী জেলার প্রায় আড়াই লাখ কর্মী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত

১৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:৩১ পিএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২০, ০৪:৩৪ এএম


নরসিংদী জেলার প্রায় আড়াই লাখ কর্মী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত

শরীফ ইকবাল রাসেল:
বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ বাংলাদেশী বিভিন্ন দেশে কর্মরত রয়েছেন। ২০১৮ সালেই প্রায় ৮ লাখ মানুষ উন্নত জীবীকার আশায় বিদেশ গমন করেছেন। বাংলাদেশ সরকার অভিবাসন খাতে সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতের লক্ষ্যে ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন ২০১৩ প্রণয়ন করেন। এছাড়া নিরাপদ অভিবাসনের জন্য বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদান করছে সরকার। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন উদ্যোগের পরও অনেকেই অনিয়মিতভাবে দেশের বাইরে যাচ্ছেন। মধ্যসত্বভোগীর প্রতারণার ফাঁদে পড়ে সর্বশান্ত হয়ে দেশে ফিরছেন অনেকেই।
জাতিসংঘ ২০০০ সালের ১৮ জুলাই অভিবাসী কর্মীগণের মৌলিক স্বাধীনতা ও মানবাধিকার সংরক্ষণের জন্য ১৮ ডিসেম্বরকে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছেন।
২০১৯ সালে বৈদেশিক কর্মসংস্থান হয়েছে ৬ লাখ ৪ হাজার ৬০ জনের। এরমধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৬ হাজার ৬৩০ জন এবং নারী রয়েছেন ৯৭ হাজার ৪৩০ জন। একই সময়ে তাদের মাধ্যমে রেমিটেন্স আহরিত হয়েছে ১৬.৬৬৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

জনশক্তি ও কর্মসংস্থান অধিদপ্তর, নরসিংদীর তথ্যমতে এবছরের জানুয়ারী থেকে নভেম্বর পর্যন্ত ১১ মাসে নরসিংদী জেলার বৈদেশিক কর্মসংস্থানের পরিমান ৩ হাজার ৭শত ২৭ জন, নারীসহ মোট সংখ্যা ১৯ হাজার ৫ শত ৩৩ জন। বর্তমানে জেলার ২ লাখ ৪৮ হাজার ৮শত ২৫ জন নারী পুরুষ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত রয়েছেন।

“দক্ষ হয়ে বিদেশ গেলে, অর্থ সম্মান দুই-ই মিলে’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে নরসিংদী জেলা প্রশাসন, জেলা জনশক্তি ও কর্মসংসংস্থান অফিস এবং ব্র্যাক প্রত্যাশা প্রকল্পের যৌথ উদ্যোগে আয়েজিত আলোচনা সভায় অতিথিদের বক্তব্যে এসব তথ্য উঠে আসে।

দিবসটি উপলক্ষে বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে নরসিংদী জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালী শেষে শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গনে মেলার উদ্বোধন করেন অতিথিগণ। পরে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় সরকার নরসিংদীর উপ পরিচালক ড. এটিএম মাহবুব উল করিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইমরুল কায়েস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেদ আহমেদ, জনশক্তি ও কর্মসংসংস্থান কর্মকর্তা শহিদুল আলম, আইওম প্রতিনিধি লুবনা ফারহানা, সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা শাহ আলম, ব্র্যাক প্রতিনিধি মিজানুর রহমান ও বিদেশ ফেরত কর্মী নুরুল ইসলাম। আলোচনা শেষে প্রশিক্ষার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়।


মেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বিভিন্ন ব্যাংক ও এনজিওসহ মোট ২৫টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে। দিনব্যাপী এই মেলায় নিরাপদ অভিবাসনের সাথে সংশ্লিষ্ট সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা সম্ভাব্য অভিবাসী, বিদেশ ফেরত অভিবাসীসহ মেলায় অংশগ্রহণকারীদের নিরাপদ অভিবাসন ও পুনরেকত্রীকরণ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রদান করেন। এছাড়া অভিবাসন বিষয়ে গণনাটক প্রদর্শনী, ভিডিও শো, কুইজ প্রতিযোগিতা, নাচ, গান অনুষ্ঠিত হয়।


বিভাগ : অর্থনীতি