মেক্সিকান গোলরক্ষকের অবিশ্বাস্য গোল!

২৫ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫০ পিএম | আপডেট: ১৮ জুলাই ২০২৪, ০২:৫০ পিএম


মেক্সিকান গোলরক্ষকের অবিশ্বাস্য গোল!

টাইমস স্পোর্টস ডেস্ক:

রোববার রাতে আশ্চর্য্য এক ঘটনা ঘটে গেলো মেক্সিকান প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে। প্রতিপক্ষের ১১ জন খেলোয়াড়ই যখন গোলের নেশায় হানা দিয়েছে ডি-বক্সে, তখন সবাইকে অবাক করে দিয়ে দূরপাল্লার শটে বল জালে জড়িয়েছেন শিবো গুয়াদালাজারার মেক্সিকান গোলরক্ষক হোসে অ্যান্তনিও রদ্রিগেজ নিজেদের ঘরের মাঠে টেবিলের তলানির দল ভেরাক্রুজের বিপক্ষে ২-১ গোলে এগিয়ে ছিলো অ্যান্তনিওর দল শিবো। ম্যাচের একদম শেষমুহূর্তে সমতা ফেরানোর লক্ষ্যে শিবোর রক্ষণে হানা দেয় ভেরাক্রুজের গোলরক্ষকসহ ১১ জন খেলোয়াড়। কিন্তু সে আক্রমণ ঠেকিয়ে দেন অ্যান্তনিও, বল নিয়ে নেন নিজের দখলে।

যখন তিনি বল পেলেন হাতে, দেখলেন ভেরাক্রুজের গোলরক্ষক সেবাস্তিয়ান জুরাদোও দাঁড়িয়ে আছেন তার কাছাকাছি জায়গায়। প্রতিপক্ষের ফাঁকা পোস্ট পেয়ে দূরপাল্লার শট নেন অ্যান্তনিও। যা কয়েক ড্রপ খেয়ে সোজা চলে যায় জালের ভেতরে। পেশাদার ক্যারিয়ারে এটিই প্রথম গোল অ্যান্তনিওর।

বল যখন জালে জড়ায় তখন তিনি নিজেই যেনো বিশ্বাস করতে পারছিলেন না, কী হয়ে গেলো। আনন্দে আত্মহারা হয়ে ছোটাছুটি শুরু করেন অ্যান্তনিও। একবার মাঠের সতীর্থ, পরমুহূর্তে সাইডবেঞ্চে থাকা খেলোয়াড়দের কোলে, আবার দর্শকদের অভিবাদনের প্রতিউত্তর দেয়া- সবকিছুই যেনো অদ্ভুত এক ঘোরের মধ্যে থেকেই করেন তিনি।

অ্যান্তনিওর এই শেষমুহূর্তের গোলে ৩-১ ব্যবধানে জয় পায় শিবো। ম্যাচ শেষে ২৭ বছর বয়সী অ্যান্তনিও শিকার করে নেন, তিনি কখনও ভাবেনওনি যে প্রায় ১০০ গজ দূর থেকে এমন এক অবিশ্বাস্য গোল করতে পারবেন। তাই গোলের পর আত্মহারা হয়ে পড়েন তিনি।

নিজের অনুভূতি জানাতে গিয়ে অ্যান্তনিও বলেন, আমি কখনও ভাবিনি যে গোল করতে পারবো, এমনকি প্রস্তুতিতেও না। আমি জানতাম না গোলের পরে কীভাবে উদযাপন করতে হয়, কীভাবে উল্লাস করতে হয়। আসলে আমি তো জানতামই না কীভাবে গোল করতে হয়। আমার জীবনের প্রথম গোল এটি।

শিবোর কোচ লুইস ফার্নান্দেসও বিশ্বাস করতে পারেননি এতদূর থেকে বল জালে জড়াবে তার দলের গোলরক্ষক। কোচ ফার্নান্দো বলেন, আমি সত্যিই বিশ্বাস করতে পারিনি যে অ্যান্তনিও এতদূর থেকে গোল করে বসবে। আমি ভাবিনি যে সে গোলের জন্য শট করবে। শটটাও কী দারুণ ছিল! সবশেষে সবাই ব্যাপারটা উপভোগ করেছে এবং ফলটাও আমাদের পক্ষেই এসেছে।'

অ্যান্তনিওর জীবনে এটি প্রথম গোল হলেও, গোলরক্ষকদের গোল করার ভুরিভুরি উদাহরণ রয়েছে ফুটবলে। বিশেষ করে সাও পাওলোর ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক রজারিও চেনি তার পেশাদার ক্যারিয়ারে ১৩১টি গোল করেছেন। ক্লাবের হয়ে নিয়মিতই ফ্রি-কিক ও পেনাল্টি শট নিতেন তিনি।

শুধু তাই নয়, আন্তর্জাতিক ম্যাচে হ্যাটট্রিকের কৃতিত্বও রয়েছে প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক হোসে লুইস চিলভার্টের। প্রায় ২০ বছর আগে ১৯৯৯ সালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে এক ম্যাচে তিনটি পেনাল্টির মাধ্যমে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেছিলেন চিলভার্ট। এছাড়া ২০১৩ সালের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে মাত্র ১৩ সেকেন্ডে গোল করেছিলেন স্টোক সিটির গোলরক্ষক আজমির বেজোভিচ।

https://twitter.com/Chivas/status/1198469833228247041

 


বিভাগ : খেলা


এই বিভাগের আরও