বিশ্বে প্রথম করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন

১১ আগস্ট ২০২০, ১০:৪৯ পিএম | আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪০ এএম


বিশ্বে প্রথম করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন
ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

বিশ্বের প্রথম করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিন অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া, যা তৈরি করেছে মস্কোর গামালেয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট। এমনটাই জানালেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) টিভিতে সম্প্রচারিত একটি ভিডিয়ো কনফারেন্সে পুতিন বলেন, এদিন সকালে নয়া করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে বিশ্বের প্রথম ভ্যাকসিন নথিভুক্ত করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের অনুমোদন পাওয়ার ফলে রাশিয়ার বড় সংখ্যক মানুষের শরীরে সেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে। প্রথমে স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক এবং ঝুঁকিপূর্ণ সদস্যদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। একইসঙ্গে ভ্যাকসি সুরক্ষা এবং কার্যকারিতা নিয়ে চূড়ান্ত তথা তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা-নিরীক্ষা জারি থাকবে বলে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা রয়টার্স।

তবে যে গতিতে রাশিয়া ভ্যাকসিন প্রয়োগে ছাড়পত্র দিয়েছে, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছে। দেশের ভিতর-বাইরে অনেকের প্রশ্ন, বিশ্বে করোনা ভ্যাকসিনে আবিষ্কারের ইঁদুর দৌড়ে প্রথম হওয়ার জন্যই কি দু'মাসও ট্রায়াল করা হয়নি? ভ্যাকসিনের সুরক্ষার সঙ্গে কি আপস করা হয়েছে?

যদিও পুতিনের দাবি, ‘আমি জানি, এটা বেশ কার্যকরভাবে কাজ করছে, জোরদার প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে এবং আমি আবারও বলছি, এটা যাবতীয় পরীক্ষায় উতরেছে।’ পাশাপাশি তাঁর আশা, খুব শীঘ্রই রাশিয়ায় বৃহদাকারে করোনা টিকা উৎপাদন করা হবে।

রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট জানান, তাঁর দুই মেয়ের মধ্যে একজনের শরীরে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে। মেয়েকে দুইটি ডোজ দেয়া হয়েছে। ও পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে। ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর মেয়ে সুস্থও আছেন বলে দাবি করেছেন পুতিন। তবে প্রথমদিন দেহের তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০.৪ ফারেনহাইট। পরদিনই অবশ্য তা কমে হয় ৯৮.৬ ফারেনহাইট। একইভাবে দ্বিতীয় ডোজের পরও সামান্য জ্বর এসেছিল। পরে তা কমে যায়। মারিয়া না ক্যাটেরিনা, কার শরীরে টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে, তা স্পষ্ট না করেই পুতিন বলেন, ও ভালোই আছে এবং অনেক অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।


বিভাগ : বিশ্ব