আরও ভয়ঙ্কর হচ্ছে শীত!

১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১২:২১ পিএম | আপডেট: ০৮ জুলাই ২০২০, ০৬:৩৪ এএম


আরও ভয়ঙ্কর হচ্ছে শীত!
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

এমনিতেই কনকনে শীত আর ঠান্ডা বাতাসে বিপর্যস্ত জনজীবন। অবিরাম মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কারণে জবুথবু দেশের মানুষ। ঠিক এমন সময় আরও ভয়ঙ্কর কথা শুনাল আবহাওয়াবিদরা। জানালো, আজ থেকে দিনের চেয়ে সন্ধ্যা ও রাতে শীতের তীব্রতা বেশি অনুভূত হতে পারে। আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে। দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে সারাদেশের অধিকাংশ অঞ্চলে বিকেল পর্যন্ত ঘন কুয়াশা অব্যাহত থাকতে পারে।

এদিকে সোমবার দেশের কোথাও বৃষ্টিপাত হয়নি। দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে ২৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোনিম্ন ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবাল ঢাকায় সূর্যোদয় হয়েছে ভোর ৬টা ৪৪ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধ্যা ৫টা ৩২ মিনিটে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা বা ৩ দিনের শেষের দিকে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম বলেন, উত্তরের হিমেল বাতাসে ক্রমান্বয়ে কমতে শুরু করছে তাপমাত্রা। তবে দিনের তুলনায় রাতে শীতের তীব্রতা বাড়ছে। পঞ্চগড়ের ওপর দিয়ে কখনো মৃদু, কখনো মাঝারি আবার কখনো তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে শৈত্যপ্রবাহ মাঝারি পর্যায়ে রয়েছে।

কুড়িগ্রাম স্থানীয় আবহাওয়া অফিস জানায়, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস; যা গত কয়েকদিনের চেয়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল আলীম মিয়া বলেন, কুয়াশার তীব্রতার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে সকাল থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। কুয়াশা কমলে চলাচল শুরু হবে। যাত্রীবাহী পরিবহন ও কাঁচামালবাহী ট্রাক অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হবে।


বিভাগ : বাংলাদেশ


এই বিভাগের আরও