সালফিউরিক এসিড প্লান্ট স্থাপনে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান প্রতিষ্ঠান 

০৯ এপ্রিল ২০১৯, ০৭:৫৬ পিএম | আপডেট: ২০ জুলাই ২০১৯, ০৩:২৪ এএম


সালফিউরিক এসিড প্লান্ট স্থাপনে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান প্রতিষ্ঠান 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

বাংলাদেশে সালফিউরিক এসিড প্লান্ট স্থাপনে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান আউটেক সাউথ ইস্ট এশিয়া প্যাসিফিক (ঙঁঃড়ঃবপ ঝড়ঁঃয ঊধংঃ অংরধ চধপরভরপ)। চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় অবস্থিত টিএসপি কমপ্লেক্সে এ প্লান্ট স্থাপনের আগ্রহ দেখিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এটি নির্মিত হলে, সালফিউরিক এসিডের অভ্যন্তরীণ চাহিদা দেশিয় উৎপাদন থেকেই যোগান দেয়া সম্ভব হবে।  
আউটেক সাউথ ইস্ট এশিয়া প্যাসিফিক এর এক প্রতিনিধিদল আজ মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এম.পি এর সাথে বৈঠককালে এ প্রস্তাব দেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ,কে,এম, শামসুল আরেফীন, প্রতিনিধিদলের প্রধান ও আউটেক সাউথ ইস্ট এশিয়া প্যাসিফিকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্রিস অর্মস্টন, ব্যবস্থাপক ইন্দ্রনীল চক্রবর্তীসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 
বৈঠকে বাংলাদেশের শিল্পখাতে অস্ট্রেলিয়ার বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় টিএসপি কমপ্লেক্সে নতুন টিএসপি সার কারখানা স্থাপন, সালফিউরিক এসিড উৎপাদন এবং টিএসপি থেকে বাই প্রোডাক্ট উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধির বিষয় আলোচনায় স্থান পায়।
বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী টিএসপি কমপ্লেক্সে নতুন টিএসপি সার কারখানা স্থাপনের বিষয়ে প্রতিনিধিদলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকার শিল্পখাতে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে। বিদেশি বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ ইতোমধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষণীয় গন্তব্যে পরিণত হয়েছে। তিনি টিএসপি এবং সালফিউরিক এসিড উৎপাদনের জন্য একটি সমন্বিত কারিগরি প্রস্তাব দাখিলের জন্য প্রতিনিধিদলকে পরামর্শ দেন। প্রস্তাবটি বাংলাদেশের স্বার্থের অনুকূলে হলে সরকার এ বিষয়ে দ্রুত ইতিবাচক উদ্যোগ নেবে বলে প্রতিনিধিদলকে আশ্বস্ত করেন। তিনি কারিগরি প্রস্তাবের আগে চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় অবস্থিত টিএসপি কমপ্লেক্স সরেজমিনে পরিদর্শনের জন্য প্রতিনিধিদলকে পরামর্শ দেন। 
উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশে টিএসপি সারের চাহিদা প্রায় ৭ লাখ মেট্রিক টন। বিসিআইসি’র আওতাধীন চট্টগ্রাম টিএসপি কমপ্লেক্সের একটি ইউনিটে বছরে ১ লাখ মেট্রিক টন টিএসপি সার উৎপাদিত হয়। জাতীয় চাহিদার অবশিষ্ট অংশ আমদানির মাধ্যমে পূরণ করা হয়ে থাকে। এ প্রেক্ষাপটে টিএসটি সার এবং সালফিউরিক এসিড উৎপাদনে যৌথ বিনিয়োগ দেশের জন্য লাভজনক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।


বিভাগ : অর্থনীতি