মাদক মামলায় সাংবাদিককে ফাঁসানোর অভিযোগ, সাংবাদিক সমাজে ক্ষোভ

০৮ জুলাই ২০১৯, ০৪:৪৮ পিএম | আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৭:৪৩ পিএম


মাদক মামলায় সাংবাদিককে ফাঁসানোর অভিযোগ, সাংবাদিক সমাজে ক্ষোভ

খুলনা প্রতিনিধি :

খুলনায় এবার সোর্সের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জের ধরে আব্দুল জলিল নামের এক সাংবাদিককে মাদক মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য এই সাংবাদিক ক্রীড়াবিদ ব্যক্তিত্ব হিসেবেও সবার কাছে পরিচিত।

খুলনা প্রেস ক্লাবের সহ-সম্পাদক ও মুসলমানপাড়া হাক্কানী জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক জলিলকে মাদকের মামলায় আটকের ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে খুলনার সাংবাদিকরা মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে। গতকাল রোববার (৭ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে খুলনা নগরীর মুসলমানপাড়ার নিজ বাড়িতে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা তুলে নিয়ে যায় খুলনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক খুলনাঞ্চল পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক আব্দুল জলিলকে। পরে তার বিরুদ্ধে ১০ বোতল ফেনসিডিল রাখার অভিযোগে খুলনা সদর থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়।

খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জলিলের ঘরের পাশের নালায় ১০ বোতল ফেনসিডিল পেয়েছেন। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে জানালা দিয়ে ওই ফেনসিডিলগুলো ফেলে দেয়া হয়েছে বলে দাবী করেন তারা।

আটকের পর খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে বসে আব্দুল জলিল সাংবাদিকদের জানান, কয়েক দিন আগে ওই এলাকার এক মাদক কারবারিকে নিয়ে প্রতিবেদন করেন তিনি। এর পর থেকেই তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল ওই মাদক কারবারি। এলাকায় মাদকের ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক রাশেদুজ্জামানকে তিনি বিষয়টি জানান। এসব কারণেই হয়তো তাকে ফাঁসিয়ে দেয়া হয়েছে।

খুলনা ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সোহাগ দেওয়ান জানান, কিছুদিন আগে ওই এলাকার মাদকদ্রব্যের সোর্স টুটুলকে মাদকসহ আটক করে র‌্যাব। আব্দুল জলিল নিজে ওই সংবাদ করেন এবং অন্যান্য পত্রিকায়ও সরবরাহ করেন। পরে টুটুল জামিনে বের হয়ে এসে আব্দুল জলিলকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক পারভীন আক্তার বলেন, আমি নিজে অভিযানে অংশ নিয়েছি। যেটা দেখেছি, তা মামলায় উল্লেখ করা হবে। কাউকে ফাঁসানোর অভিযোগ সঠিক না।


বিভাগ : বাংলাদেশ