তথ্য পাচারের অভিযোগে ফেসবুককে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানার ‘অনুমোদন ’

১৩ জুলাই ২০১৯, ০২:৫৪ পিএম | আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৭:০৪ এএম


তথ্য পাচারের অভিযোগে ফেসবুককে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানার ‘অনুমোদন ’

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য পাচারের অভিযোগে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মার্কিনযুক্তরাষ্ট্রের দ্য ফেডারেল ট্রেড কমিশন (এফটিসি) স্মরণকালের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অংকের এ জরিমানার এ অনুমোদন দেয় বলে বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে।

খবরে বলা হয়, এফটিসি যুক্তরাজ্যভিত্তিক রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে ফেসবুক থেকে ৮ কোটি ৭০ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য অনৈতিকভাবে সংগ্রহের অভিযোগ তদন্ত করছে। এই প্রতিষ্ঠানটি ২০১৪ সাল থেকে এসব তথ্য হাতিয়ে নিয়েছিল বলে অভিযোগ ওঠে। প্রায় ৮ কোটি ৭০ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাত ও অপব্যবহারের অভিযোগ নিয়ে এফটিসি গত বছরের মার্চ থেকে তদন্তে নামে।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম জানায়, ৩-২ ভোটে এ জরিমানার বিষয়টি অনুমোদিত হয়। রিপাবলিকান কমিশনাররা এ জরিমানার পক্ষে থাকলেও ডেমোক্রেটরা ছিলেন বিপক্ষে। এদিকে এসব প্রতিবেদনের বিষয়ে কোনো মন্তব্য নেই বলে জানিয়েছে এফটিসি ও ফেসবুক।

মার্কিন বিচার বিভাগের সিভিল বিভাগ জরিমানার বিষয়ে এখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবে। তবে জরিমানার চূড়ান্ত নিষ্পত্তিতে কত সময় লাগবে, তা জানা যায়নি। শেষ পর্যন্ত যদি ৫০০ কোটি ডলার জরিমানা বহাল থাকে তাহলে তা হবে কোনো প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ওপরে এটিই হবে স্মরণকালের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অংকের এ জরিমানা।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে কাজ করেছিল কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। একটি অ্যাপের মাধ্যমে কয়েক কোটি ফেসবুক গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে তা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের কাজে লাগানো হয়েছিল বলে ফাঁস হয়। ট্রাম্পের বিজয়ে এর বড় ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করা হয়। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য বেহাত হওয়ার ঘটনাটি সামনে নিয়ে আসেন কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সাবেক কর্মী ক্রিস্টোফার উইলি।