পর্যটনের অপার সম্ভাবনা শিবপুরের ঐতিহ্যবাহি চিনাদী বিল

১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩:৪১ এএম | আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩১ পিএম


পর্যটনের অপার সম্ভাবনা শিবপুরের ঐতিহ্যবাহি চিনাদী বিল
Cinadi_Shibpur

 
নিজস্ব প্রতিবেদক

Chinadidi_Bil


নরসিংদীর শিবপুরের ঐতিহ্যবাহি চিনাদী বিলকে ঘিরে তৈরি হয়ে হয়েছে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত চিনাদী বিল হয়ে উঠেছে প্রকৃতিপ্রেমী মানুষের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু।

চিনাদী বিলকে ঘিরে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটানো গেলে স্থানীয়ভাবে কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটবে মনে করছেন স্থানীয় প্রশাসন। এরই মধ্যে স্থানীয় জেলা প্রশাসন এই স্থানটির নামকরণ করেছে “স্বপ্নচিনাদী”।

Narsingdi_River


সরেজমিন গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নরসিংদীর শিবপুর উপজেলা সদর থেকে ৮ কিলোমিটার পশ্চিমে দুলালপুর ইউনিয়নে অবস্থিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত একটি বিলের নাম চিনাদী বিল।

মানিকদী, শিমুলিয়া, দুলালপুর, ভিটি চিনাদী ও দরগাহবন্দ, এই পাঁচ গ্রামের মিলনস্থলে অবস্থিত এই বিলের যেমন রয়েছে প্রাকৃতিক রূপ, তেমনি বিলের পানিতে রয়েছে দেশীয় প্রজাতির সু-স্বাদু মৎস্য সম্পদের ছড়াছড়ি।

Narsingdi_River

নদী তীরে রয়েছে কৃষককের আবাদ করা নানা রকম শাকসবজির ক্ষেত। প্রায় ৫ শত ৫০ বিঘা আয়তনের স্বচ্ছ পানির এই বিলজুড়ে যেমন রয়েছে হাজারো মৎস্যজীবীর বিচরণ। তেমনি রয়েছে বক, চিল, মাছরাঙা, পান কৌড়ি, বালিহাঁসসহ বিভিন্ন পাখির বিচরণ ক্ষেত্র।

এছাড়া শীতকালে অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠে এই বিল। জেলেদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যেন ঝাঁকে ঝাঁকে পাখিরা কচুরিপানায় বসে মাছ শিকারে ব্যস্ত হয়ে উঠে। দলবেধে এসব পাখিদের ওড়াওড়ি নিমিষেই কেড়ে নেয় দর্শনার্থীদের মন।

Narsing_River

শীতকালীন এসব পাখির সৌন্দর্য্য দেখার জন্য ভীড় করেন স্থানীয় মানুষসহ দূরদূরান্তের পর্যটকরা। যান্ত্রিক কোলাহলমুক্ত এই দৃশ্যপটে পাখিসহ বিভিন্ন জীব বৈচিত্রের কারণে রক্ষা হচ্ছে পরিবেশ এর ভারসাম্য।


বিলের চারপাশের শস্য-শ্যামলা নয়নাবিরাম দৃশ্য ও নীল আকাশের নৈসর্গিক সৌন্দর্য্য দৃষ্টি কেড়েছে দর্শনার্থীদের। নৌকা কিংবা স্পিডবোটে বিলের বুকজুড়ে ভেসে বেড়ানো, অথবা বিলের তীরে পায়ে হেটে চিনাদি বিলের মনোরম দৃশ্য উপভোগ করে মুগ্ধ হচ্ছেন তারা। সন্ধ্যা নামার আগ মুহুর্তে আকাশের রংধনু চিনাদী বিলের পানির সাথে গড়ে তোলে মিতালী।

অনেকে এখানে আসেন সরাসরি জেলেদের নিকট থেকে চিনাদী বিল থেকে ধরা দেশীয় প্রজাতির মাছ কিনতে। এই বিলের সুস্বাদু মাছের স্বাদের খ্যাতি রয়েছে রাজধানী ঢাকা পর্যন্ত।

Chinadi_River


প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি চিনাদী বিল প্রতিনিয়ত হাতছানি দিয়ে ডাকে পর্যটকদের। তাই প্রতিদিনই সকল বয়সী মানুষের ভীড়ে মুখর হয়ে উঠে চিনাদী বিলের পাড়। ঈদ কিংবা অন্যসব উৎসবে নামে মানুষের ঢল। শিবপুর উপজেলার কোথাও উল্লেখযোগ্য বিনোদন কেন্দ্র না থাকায় এখানকার প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন দর্শনার্থীরা।


স্থানীয় কৃষক ও জেলেরা মনে করেন, পর্যটক আকর্ষনের পাশাপাশি চিনাদী বিলের তীরে মৎস্য, কৃষিপণ্য আহরণ ও বিপণনের ব্যবস্থা করা গেলে তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের পাশাপাশি এলাকার চিত্র অনেকাংশে পাল্টাবে। রাস্তাঘাট ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন করাসহ চিনাদী বিলকে একটি পূর্ণাঙ্গ পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার দাবী জানিয়েছেন তারা।

Chinadi_River


স্থানীয় বাসিন্দা আবু নাঈম রিপন বলেন, জেলার একমাত্র বড় আয়তনের এই বিলটিতে সারা বছরজুড়েই থাকে পানি। হিন্দু ও মুসলমান ধর্মের দুই শতাধিক জেলে এই বিলের মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন। নদীর সৌন্দর্য্য রক্ষা ও অতিথি পাখির যেন কোন সমস্যা না হয় সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রয়েছে বিলপাড়ের মানুষের।


শিবপুরের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন স্বপন বলেন, বছরজুড়েই স্থানীয় ও দূরের দর্শনার্থীদের উপস্থিতি থাকে চিনাদী বিলপাড়ে। স্থানীয়ভাবে দর্শনীয় স্থান না থাকায় চিত্তবিনোদনে চিনাদী বিলই অনেকের একমাত্র ভরসা।

Chinadi_River


চিনাদী বিলে পর্যটনের অপার সম্ভাবনার কথা জানিয়ে শিবপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম মৃধা বলেন, চিনাদী বিলকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে তৎকালীন জেলা প্রশাসক আবু হেনা মোরশেদ জামান বিলটির নাম দিয়েছেন “স্বপ্নচিনাদী”।

Chinadi_River

সেই লক্ষ্যে এখানে ঘাট নির্মাণ, কটেজ, শৌচাগার, রেস্টুরেন্ট, কাঠের সেতু, ছাতা, ভ্রমন নৌকা, ফিসমার্কেটসহ প্রয়োজনীয় স্থাপনা তৈরির পদক্ষেপ নেয়া হয়।

 



এই বিভাগের আরও