বেলাবতে রোজার মাসেও লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত জনজীবন

২২ মে ২০১৯, ০৮:২৫ পিএম | আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:০০ পিএম


বেলাবতে রোজার মাসেও লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত জনজীবন

বেলাব প্রতিনিধি ॥
নরসিংদীর বেলাব উপজেলায় পল্লী বিদ্যুৎ এর ভয়াবহ লোডশেডিং বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। রমজান মাসেও ঘনঘন লোডশেডিং ও গরমের তীব্রতার কারণে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি রোজাদার ব্যক্তিদের জীবনযাপন হয়ে পড়েছে অসহনীয়। স্থবির হয়ে পড়েছে বাজারের ব্যবসা বাণিজ্য ও পোল্ট্রি খামার পরিচালনা।

এছাড়া ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যাটারীচালিত ইজিবাইক ও রিকশা চালকেরা। বিদ্যুৎ না থাকায় রিকশার ব্যাটারি রিচার্জ করতে না পেরে উপার্জন বন্ধ হওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।
নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর মরজাল জোনাল অফিসের আওতাধীন বেলাব উপজেলায় মোট ৬ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ চাহিদার বিপরীতে ৬ মেগাওয়াট বরাদ্দও থাকলেও ঘনঘন এ লোডশেডিং নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের দাবী কোথাও লোডশেডিং নেই।


বেলাব উপজেলাজুড়ে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অভিযোগ, এলাকায় বিদ্যুতের লোডশেডিং নিয়মে পরিণত হয়ে গেছে। আবহাওয়া খারাপ বা আকাশ সামান্য মেঘাচ্ছন্ন দেখা গেলেই এ এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। আবহাওয়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে গেলেও ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধই থেকে যায়। মাঝে মধ্যে টানা এক দুইদিন পরও বিদ্যুৎ এর দেখা মেলে না। অভিযোগ রয়েছে বিদ্যুৎ এর এই আসা যাওয়া ও হঠাৎ ভোল্টেজ আপ ডাউনের কারণে বাসা বাড়ীর টিভি ফ্রিজ, কম্পিউটারসহ ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে যায়।


গরমের শুরু থেকে অব্যাহত লোডশেডিং শুরু হলেও পবিত্র রমজান মাসে লোডশেডিং এর মাত্রা আরও আশংকাজনক হারে বেড়েছে। বর্তমানে সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত কয়েক মিনিট অন্তর অন্তর বিদ্যুৎ আসা যাওয়া নিত্য নৈামত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। অসহ্য গরমে এমনিতেই মানুষের অবস্থা নাজেহাল আবার লোডশেডিং এর কারণে জনজীবনে নেমে এসেছে চরম ভোগান্তি।

উপজেলার আমলাব গ্রামের ইজিবাইক চালক কামাল মিয়া বলেন, দিনে রাতে অর্ধশতাধিকবার বিদ্যুৎ আসা যাওয়া করে। ফলে ব্যাটারি চার্জ করতে পারছি না। এতে আমাদের উপার্জন বন্ধ হয়ে গেছে।

বেলাব প্রেসকাবের সভাপতি মোশারফ হোসেন নীলু বলেন, দিন রাত তো বিদ্যুৎ বেশিরভাগ সময়ই থাকে না। আর থাকলেও খুব কম সময়ের জন্য। সবচেয়ে কষ্ট হয় সেহরী, ইফতারী ও তারাবি নামাজের সময়ও বিদ্যুৎ না থাকায়। চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুতের বরাদ্দ থাকলেও লোডশেডিং কেন হচ্ছে বোধগম্য নয়।


এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর ডিজিএম মোঃ খোরশেদ আলম লোডশেডিং হচ্ছে না দাবী করে বলেন, ক্যাবল ছিড়ে যাওয়া, বিদ্যুতের খুঁটির সমস্যাসহ ঝড় বৃষ্টির কারণে মাঝে মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকে। তবে বর্তমানে এ সমস্যা আর নেই বলেও দাবী করেন তিনি।