নরসিংদীতে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসীদের আগ্রাসন বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মানববন্ধন

০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:৩৬ পিএম | আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:২২ এএম


নরসিংদীতে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসীদের আগ্রাসন বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নরসিংদীর মেহেরপাড়া এলাকায় ইভটিজিং, মাদক ব্যবসা ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের আগ্রাসন বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন গ্রামবাসী। রোববার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে এসে নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন করেন ভুক্তভোগী মেহেরপাড়া গ্রামবাসী।

এতে ভুক্তভোগীদের পরিবার ও নারীসহ কয়েকশত গ্রামবাসী অংশগ্রহণ করেন। এসময় গ্রামবাসীর ওপর হামলাকারী মাদক ব্যবসায়ীদের শাস্তির দাবিতে স্লোগান দেন এলাকাবাসী। পরে মাদক-সন্ত্রাসীদের কবল থেকে রক্ষার দাবিতে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন এলাকাবাসী।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মাধবদী থানার মেহেরপাড়া এলাকায় ইভটিজিং, চাঁদাবাজি, বাড়িঘরে হামলা ও মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালাচ্ছে স্থানীয় সন্ত্রাসী একাধিক মামলার আসামী হুমায়ুন ও ফয়সাল চক্র। এতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন গ্রামবাসী।

তাদের মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপে বাঁধা দেয়ায় গত ২৮ নভেম্বর এক নারীসহ ৩ জন গ্রামবাসীকে কুপিয়ে জখম করে মাদক কারবারিরা৷ এ ঘটনায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়িদের মূল হোতা মো. হুমায়ুন ও ফয়সাল মিয়া সহ ২০ জনের নামে মামলা হলেও তাদের গ্রেপ্তার করা হয়নি। এতে সন্ত্রাসী চক্রটি আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। অবিলম্বে অভিযুক্ত সন্ত্রাসী চক্রকে গ্রেপ্তার করে মাদক-সন্ত্রাসের আগ্রাসন বন্ধের দাবি জানানো হয় মানববন্ধনে।

মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে স্মারকলিপি দেন মানববন্ধনকারিরা। মানববন্ধনে এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য দেন, মেহেরপাড়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক আহত খলিলুর রহমান, একই ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন মাস্টার, ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মিনহাজুল ইসলাম, মেহেরপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক কামাল হোসেন প্রমুখ।

যোগাযোগ করা হলে মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, মেহেরপাড়ায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় অভিযোগের পর থানায় মামলা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামী পলাতক, গ্রেপ্তারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সহযোগী ৫ আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।



এই বিভাগের আরও