পলাশে যৌনপীড়ন মামলা: চারদিনেও গ্রেফতার হয়নি আসামীরা

১৯ জুন ২০১৯, ০৫:১১ পিএম | আপডেট: ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৪:৩৬ এএম


পলাশে যৌনপীড়ন মামলা: চারদিনেও গ্রেফতার হয়নি আসামীরা

 

পলাশ প্রতিনিধি ॥
নরসিংদীর পলাশে এক কলেজ ছাত্রীকে যৌনপীড়ন ও মারধরের ঘটনায় তিন বখাটের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা দায়ের করার চারদিন অতিবাহিত হলেও আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি থানা পুলিশ। উল্টো আসামী পক্ষের প্রভাবশালী লোকজন কর্তৃক মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
গত শনিবার (১৫ জুন) যৌনপীড়নের শিকার এক কলেজ ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে পলাশ থানায় তিন বখাটের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
অভিযুক্ত তিন আসামী হলো-ঘোড়াশাল পৌর এলাকার গড়পাড়া গ্রামের মঞ্জুর মিয়ার ছেলে সৈকত (২২), গড়পাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলামে ছেলে রানা (২৩) ও ঘোড়াশাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বসবাসরত জিল্লুর রহমানের ছেলে পিয়াস (২১)।
এামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (১৪ জুন) রাতে ঘোড়াশাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে দাওয়াত খেয়ে মায়ের সাথে বাড়ি ফিরছিলো এক কলেজ ছাত্রী। পথে বখাটেরা ওই ছাত্রীর পথরোধ করে তার গায়ের ওড়না ধরে টান দেয়। এসময় বখাটেদের বাধা দিলে তারা ওই ছাত্রীকে মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীর শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে যৌনপীড়ন করে। এসময় বখাটেরা ওই ছাত্রীর মাকেও মারধোর করে রক্তাক্ত জখম করে।
স্থানীয়রা জানান, ওই বখাটেরা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের গেইটের সামনে দাঁড়িয়ে প্রায় সময়ই স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে থাকে। তাদের ভয়ে কেউ আইনগত ব্যবস্থা নিতে সাহস পায় না।
ভুক্তভোগী ওই কলেজ ছাত্রীর বাবা জানান, মেয়েকে যৌনপীড়ন ও মারধরের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শনিবার (১৫ জুন) রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করলেও এখনো কেউ গ্রেফতার হয়নি। এখন মামলা তুলে নিতে একটি প্রভাবশালী মহল প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। আমরা মামলা দায়ের করে উল্টো জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এসআই) আল-আমিন হাওলাদার জানান, মামলা দায়ের করার পর থেকে আসামীরা পলাতক রয়েছে। আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।