রায়পুরায় নির্বাচনী প্রচারনায় গিয়ে হামলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত

২৩ মে ২০২৪, ১২:২২ এএম | আপডেট: ২০ জুন ২০২৪, ১২:০৩ এএম


রায়পুরায় নির্বাচনী প্রচারনায় গিয়ে হামলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রচারনায় গিয়ে হামলায় সুমন মিয়া (৪০) নামে এক ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী (তালা প্রতিক) নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন আরও ৫ জন। বুধবার বিকালে উপজেলার পাড়াতলি ইউনিয়নের মামদেরকান্দি এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রতিদ্বন্দ্বি ভাইস প্রার্থী চশমা প্রতিকের আবিদ হাসান রুবেলসহ তার সমর্থকরা এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ নিহতের কর্মী সমর্থক ও পরিবারের।

 নিহত সুমন মিয়া (৪০) চরসুবুদ্ধি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিনের ছেলে এবং আসন্ন ২৯ মে তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তালা প্রতিকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন।

নিহতের পরিবার, কর্মী ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলা পরিষদের নির্বাচনী প্রচারনায় চরাঞ্চলের পাড়াতলির মামদেরকান্দি এলাকায় গেলে মুখোমুখী হয় দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী চশমা প্রতিকের আবিদ হাসান রুবেল ও তালা প্রতিকের সুমন মিয়ার সমর্থকরা। এসময় দুই পক্ষের সমর্থকরা প্রথমে হাতাহাতি ও পরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে দুই পক্ষের কয়েকজন আহত হয়। এসময় হামলা চালিয়ে সুমন মিয়ার গাড়ী ভাংচুর করে প্রতিপক্ষ রুবেলের লোকজন। আহত হওয়ার পর প্রাণ বাচাঁতে পালিয়ে গোপন স্থানে আশ্রয় নেয় প্রার্থী সুমন মিয়া।

পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে নাকে মুখে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে তালা প্রতিকের প্রার্থী সুমন মিয়াকে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় কর্মী সমর্থকরা। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর সুমন মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রার্থীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে তার কর্মী সমর্থকদের মধ্যে। ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবিদ হাসান রুবেলসহ তার লোকজন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সুমনকে লক্ষ্য করে গুলি করেছে বলে অভিযোগ করেন নিহতের কর্মী সমর্থকরা।

রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিকেল অফিসার জান্নাতুল ফেরদৌস সাংবাদিকদের বলেন, সুমন মিয়ার নাকে মুখে রক্ত ছাড়া শরীরে আঘাতের আর কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। পরীক্ষা নিরিক্ষার পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। মৃত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল।

নরসিংদীর সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুরা সার্কেল) আফসান আল আলম বলেন, প্রচারনার সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে প্রার্থী নিহতের ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। পরবর্তী অপ্রতীতিকর ঘটনা এড়াতে রায়পুরা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 

তৃতীয় ধাপে আগামী ২৯ মে রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ। গত ১৪ মে প্রতিক বরাদ্দের পর থেকে নির্বাচনী প্রচারনায় নামেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা।



এই বিভাগের আরও