২০২৩ বিশ্বকাপ আসরের আয়োজন করবে ভারত

১৫ জুলাই ২০১৯, ০১:১১ পিএম | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:২৬ এএম


২০২৩ বিশ্বকাপ আসরের আয়োজন করবে ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক:

সারা বিশ্বের অগণিত ক্রিকেটপ্রেমীর ত্রিকেট উন্মাদনায় মাতিয়ে রেখে দীর্ঘ দেড় মাস পর শেষ হলো দ্বাদশ বিশ্বকাপ। গতকাল রবিবার (১৪ জুলাই) প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ট্রফি জেতার লক্ষ্য নিয়ে ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডসে অনুষ্ঠিত ফাইনালে মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। আর এই ম্যাচ এর মধ্য দিয়েই পর্দা নামে ২০১৯ বিশ্বকাপের। সেই সঙ্গে শুরু হলো আরো চার বছরের অপেক্ষা। ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপের পরবর্তী আসর বসবে ২০২৩ সালে। আর এই আসরটি আয়োজন করবে ভারত।

সে হিসেবে পরবর্তী ওয়ানডে বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে উপমহাদেশের মাটিতে, যা বাংলাদেশের জন্যও সুখবরই বলা যায়। কেননা উইকেট এবং কন্ডিশন টাইগারদের অনুকূলে থাকবে।
ভারত এখন পর্যন্ত একবারও এককভাবে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে পারেনি। ১৯৮৭ সালে পাকিস্তানের সঙ্গে যৌথভাবে বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল দেশটি। সেটাই ছিল উপমহাদেশে অনুষ্ঠিত প্রথম বিশ্বকাপ আসর।
ওই আসরের ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া, যা অজিদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জয়।

ভারত পরেরবার বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পায় ১৯৯৬ সালে। তবে তাও এককভাবে নয়। এই আসরটি আয়োজনে ভারতের সঙ্গী হয় পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। সেবার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতেছিল লঙ্কানরা। ২০১১ সালে আবারো বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পায় ভারতীয়রা।
এবার তাদের সঙ্গী হয় উপমহাদেশের দুই দেশ বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। ওই আসরের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছিল ভারতের অন্যতম ব্যস্ততম শহর মুম্বাইয়ের ওয়ানখেড়ে স্টেডিয়ামে। ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে ৬ উইকেটে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল লঙ্কানরা। এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ পাঁচবার বিশ্বকাপ আয়োজন করেছে ইংল্যান্ড ১৯৭৫, ১৯৭৯, ১৯৮৩, ১৯৯৯ ও ২০১৯ সালে।

এ ছাড়া অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড যৌথভাবে দুবার বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল।
এরমধ্যে প্রথমবার ১৯৯২ সালে, আর ২০১৫ সালে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের আসর বসে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে। ২০০৭ সালে বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল উইন্ডিজ। এর আগে ২০০৩ সালে বিশ্বকাপের আসর বসেছিল আফ্রিকার তিনটি দেশ- দক্ষিণ আফ্রিকা, কেনিয়া ও জিম্বাবুয়েতে।
এদিকে ২০২৩ সালে হতে যাওয়া ত্রয়োদশ বিশ্বকাপে ভারতের সঙ্গে যৌথ আয়োজক হওয়ার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। যদি শেষ পর্যন্ত এ ব্যাপারে বিসিবি আইসিসির সম্মতি আদায়ে সফল হতে পারে তবে টাইগার ক্রিকেটের জন্য সেটা হবে বেশ ইতিবাচক দিক।


বিভাগ : খেলা