করোনায় বাতিল হলো বিপিএল ও স্বাধীনতা কাপ ফুটবল

১৭ মে ২০২০, ১০:০৭ পিএম | আপডেট: ২৯ মে ২০২০, ১১:১১ পিএম


করোনায় বাতিল হলো বিপিএল ও স্বাধীনতা কাপ ফুটবল

স্পোর্টস ডেস্ক:

অবশেষে গুঞ্জনকে সত্যি করে বাতিল হয়ে গেল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ফুটবলের ১২তম আসর। ক্লাবগুলো বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে (বাফুফে) আগেই জানিয়ে দিয়েছিল, তারা আর খেলতে চায় না। নিয়ম অনুযায়ী বাফুফে দ্বারস্থ হয় এশিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এএফসির। তারা বাফুফেকে বলে দেয়, সিদ্ধান্তটা তাদেরকেই নিতে হবে।

রবিবার (১৭ মে) বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, ক্লাবগুলোর মতামতের ভিত্তিতে চলতি মৌসুমের প্রিমিয়ার লিগ ফুটবল আর মাঠে গড়াবে না, থাকছে না রেলিগেশন। এছাড়াও চলতি মৌসুমে আর মাঠে গড়াবে না স্বাধীনতা কাপ ফুটবলও। বাফুফের এই সিদ্ধান্তে কার্যত সমাপ্তি ঘটল চলমান ফুটবল মৌসুমের।

পেশাদার লীগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘সার্বিক বিবেচনায় এবং ক্লাবগুলোর অনুরোধের ভিত্তিতে ২০১৯-২০ মৌসুমের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাফুফের নির্বাহী কমিটি।

যেহেতু লিগ বাতিল করা হয়েছে সে কারণে ঘোষণা করা হবে না চ্যাম্পিয়ন দলের নাম। একই সঙ্গে থাকছে না রেলিগেশনও। এএফসি কাপের আগামী আসরে বাংলাদেশী ক্লাবদের জন্য দুটি কোটা ধরে রাখার জন্য অবশ্যই এবারের লিগের চ্যাম্পিয়ন দলের নাম ঘোষণা করতে হতো। তা না হওয়ায় এএফসি কাপের আগামী আসরে খেলবে কেবল বসুন্ধরা কিংস। ফেডারেশন কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এএফসি কাপের পরের আসরে প্লে-অফে খেলবে কর্পোরেট দলটি।

গত ১৫ মার্চ থেকে লিগ স্থগিত হওয়ার আগে ৬ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে ছিল ঢাকা আবাহনী। সমান ম্যাচে দ্বিতীয় স্থানে থাকা চট্টগ্রাম আবাহনীর পয়েন্টও ১৩। গোল পার্থক্যে পিছিয়ে থাকায় দুইয়ে বন্দর নগরীর দলটি।

ওদিকে লিগ বাতিলের সিদ্ধান্তে ঝুলে গেল ‘ফুটবলারদের পারিশ্রমিক’ ভাগ্য! অর্থাৎ লিগ না হলেও ফুটবলাররা চুক্তির আওতায় পুরো টাকা পাচ্ছে কি পাচ্ছে না সেই নির্দেশনা আসেনি ফেডারেশনের জরুরি বৈঠক থেকে। বিদেশি ফুটবলারদের সঙ্গে ক্লাবের মাসভিত্তিক চুক্তি হলেও স্থানীয়দের সঙ্গে মৌসুমভিত্তিক চুক্তি হয়। তাদের সঙ্গে দলের চুক্তির বিষয়টি কোথায় দাঁড়াবে বা কতটুকু পারিশ্রমিক তারা পাচ্ছে সেই বিষয়েও কোন নির্দেশনা আসেনি বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি বৈঠক থেকে।

এ বিষয়ে নির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী জানান, পরবর্তীতে যখন খেলোয়াড়দের চুক্তি ইস্যু উঠবে তখন আবারো বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

পরবর্তীতে কবে এই নিয়ে বৈঠক হতে পারে সে বিষয়ে কোনও চূড়ান্ত তারিখ বলা হয়নি বাফুফের পক্ষ থেকে। তবে আপাত দৃষ্টিতে করোনার মহামারিতে ঝুলে গেল চুক্তির বিষয়টি। যেখানে বেশিরভাগ ফুটবলারই তাদের পূর্ণ পারিশ্রমিক পায়নি। লিগই যখন বাকী সেখানে প্রশ্ন তো থেকেই যাচ্ছে।


বিভাগ : খেলা


এই বিভাগের আরও