মহাকাশে ভারতের গুপ্তচর উপগ্রহের সফল উৎক্ষেপন

২২ মে ২০১৯, ০৩:১৩ পিএম | আপডেট: ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১০:১৮ এএম


মহাকাশে ভারতের গুপ্তচর উপগ্রহের সফল উৎক্ষেপন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মহাকাশে নতুন গুপ্তচর উপগ্রহের সফল উৎক্ষেপন করলো ভারত। এই উপগ্রহের বিশেষত্ব হল আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হলেও এটি নিজের কাজ করে যেতে পারবে। পাকিস্তানের বালাকোটের মত স্ট্রাইক করার প্রয়োজন আবারও কখনো পড়লে কাজে আসবে এই উপগ্রহ। বুধবার (২২ মে) ভোরে এটি উৎক্ষেপন করা হয়েছে।

ভারতের নতুন এই উপগ্রহ সম্পর্কে বলা হচ্ছে, এর ওজন ৬১৫ কেজি। রাত হোক বা দিন যে কোনও সময় চারপাশের স্পষ্ট ছবি তুলতে পারবে এটি। আবহাওয়ার পরিস্থিতিও উপগ্রহটির কাজে প্রভাব ফেলতে পারবে না।

রিস্যাট বি টু নামের এই উপগ্রহ দিয়ে মহাকাশ থেকে শত্রুপক্ষের ওপর ভারতের নজরদারি হবে আরও নিখুঁত এবং স্পষ্ট। ছবি পাঠাতে শুরু করলে ভারত মহাসাগরে কোনো চীনা যুদ্ধজাহাজ লুকিয়ে আছে কি না অথবা পাকিস্তানের জঙ্গি ঘাঁটিতে উগ্রপন্থীরা কী করছে, সেই গতিবিধিও চলে আসবে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীদের নিকট।

এর আগের রিস্যাট পর্যায়ের উপগ্রহগুলির থেকে অনেক শক্তিশালী এই রিস্যাট-টু-বি। এই মুহূর্তে মহাকাশে আছে ভারতের রিস্যাট-ওয়ান এবং রিস্যাট-টু উপগ্রহ। তাদের থেকে অনেক নিখুঁত ছবি পাঠাবে নতুন এই উপগ্রহটি। সমুদ্রপৃষ্ঠের ৫৫৭ কিলোমিটার উপর থেকে মেঘের আস্তরণ ভেদ করে শত্রুভূমিতে দৃষ্টি রাখতে পারবে এ উপগ্রহ। নজরদারির কারণেই এই উপগ্রহকে ডাকা হচ্ছে ‘আকাশের গোপন চোখ’ বা ‘গুপ্তচর’ উপগ্রহ নামে।

কোনো একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুর ছবি দিনে দুই থেকে তিনবার তুলতে পারবে এটি। এর ফলে কোনো বাড়ি বা অঞ্চলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কী পরিবর্তন হচ্ছে, তা নির্ভুলভাবেই স্পষ্ট হয়ে যাবে।পাকিস্তান ছাড়াও এই ‘গুপ্তচর’ নজর রাখবে আরব সাগর, বঙ্গোপসাগর এবং ভারত মহাসাগরের উপরও।

এই নিয়ে মহাকাশে মোট ৩৫৪টি কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। এই উপগ্রহ পাঠানোর সঙ্গেই মোট ৫০টন ওজনের সামগ্রী মহাকাশে পাঠানোর কৃতিত্ব অর্জন করল ইসরো।

এই উপগ্রহের সফল উৎক্ষপণের পর ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থাকে অভিনন্দন জানিয়ে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন টুইট করেছেন, ‘ইসরো আমাদের আরও একবার গর্বিত করল। সারা বছরের জন্য এই উপগ্রহই হয়ে উঠবে আমাদের চোখ।

২০০৮ সালের মুম্বই হামলার পরই এই ধরনের নজরদারি উপগ্রহের প্রয়োজনীয়তা বুঝতে পারে। সেই কারণে তড়িঘড়ি রিস্যাট-ওয়ানের আগে মহাকাশে রিস্যাট-টু পাঠায় ভারত। ২০০৯ সালের ২০ এপ্রিল ইসরায়েলে বানানো রিস্যাট-টু আকাশে পাঠিয়েছিল ভারত। ৫৩৬ কিমি উচ্চতা থেকে এই উপগ্রহ সারা বছর নজর রাখে ভারতের সীমান্তে। সন্দেহজনক কিছু দেখলেই সেই খবর পৌঁছে যায় ভারতের সেনা এবং গোয়েন্দা সংস্থাদের কাছে। ২০১৬ সালে উরিতে সার্জিকাল স্ট্রাইক বা সাম্প্রতিক বালাকোট অভিযান করা হয়েছিল এই উপগ্রহের সাহায্যেই।

রিস্যাট-টু থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী নতুন উপগ্রহ। এখানে ব্যবহার করা হয়েছে সিন্থেটিক অ্যাপারচার রেডার, যার ফলে উচ্চমানের ছবি তোলা যাবে আকাশ থেকে। নজরদারি ছাড়া প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ অন্যান্য বিপর্যয় মোকাবিলার ক্ষেত্রেও কাজে লাগানো যাবে এই উপগ্রহকে।

আগামী জুলাইয়ে চাঁদে রোবট পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে ইসরোর।

যা নিয়ে ইসরো প্রধান ডক্টর কে শিবান বলেছেন, ‘মহাকাশে ভারত যে জায়গায় পৌঁছতে যাচ্ছে, যেখানে অন্য কেউ এখনও পর্যন্ত যেতে পারেনি। তা হল চাঁদের দক্ষিণ মেরুর কাছের একটি জায়গা।’


বিভাগ : বিশ্ব


Regent
এই বিভাগের আরও