বেলাবতে গ্রামের বস ১৫ লাখ ও গ্রামের বাবু’র দাম হাঁকা হচ্ছে ১২ লাখ

২২ জুলাই ২০২০, ১২:১৯ পিএম | আপডেট: ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:২৪ পিএম


বেলাবতে গ্রামের বস ১৫ লাখ ও গ্রামের বাবু’র দাম হাঁকা হচ্ছে ১২ লাখ

শেখ আব্দুল জলিল:
নরসিংদীর বেলাব উপজেলার সররাবাদ গ্রামের মো. ইদ্রিস মিয়ার ছেলে রাজিব প্রধানের পালিত দুটি ষাঁড় গরুর একটির নাম “গ্রামের বস” ও অপরটির নাম “গ্রামের বাবু”। আসন্ন কোরবানীর ঈদকে ঘিরে বিক্রির জন্য “গ্রামের বস” এর দাম হাঁকা হচ্ছে ১৫ লাখ টাকা ও “গ্রামের বাবু” এর দাম হাঁকা হচ্ছে ১২ লাখ টাকা।
শখ করে পালন করা রাজিব প্রধানের এই ষাঁড় দুটি দেখার জন্য প্রতিদিনই তার বাড়িতে ভিড় করছেন আশেপাশের এলাকাসহ দূরদূরান্তের উৎসুক লোকজন।

“গ্রামের বস” ও অপরটির নাম “গ্রামের বাবু” রাখার কারণ হিসেবে রাজিব প্রধান জানান, সররাবাদ গ্রাম তথা সল্লাবাদ ইউনিয়নে এরকম ষাঁড় আর নেই। ষাঁড়টি এই এলাকার সেরা ষাঁড়। তাই এদের এমন নাম দেওয়া হয়েছে।
তিনি জানান, গ্রামের বসের দৈর্ঘ্য ১০০ ইঞ্চি, উচ্চতা ছয় ফুট, চওড়া ৯৬ ইঞ্চি এবং ওজন প্রায় এক হাজার ৬৮০ কেজি (৪২ মণ)। সাদা আর কালো রঙের অস্ট্রেলিয়ান জাতের ষাঁড়টি সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে মোটাতাজা করা হয়েছে। এছাড়া গ্রামের বাবু’র ওজন ৩৫ মণ।


কোরবানি উপলক্ষে গ্রামের বসকে বিক্রির জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন জায়গায় বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে। এরইমধ্যে গ্রামের বসকে কিনতে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা যোগাযোগ করছেন। ইতোমধ্যে ক্রেতারা ‘গ্রামের বস’ এর দাম করেছেন ১২ লাখ ও অন্যটির দাম করেছেন সাড়ে আট লাখ টাকা। প্রতিদিন কেউ না কেউ গ্রামের বসকে দেখতেও আসছেন।

রাজিব প্রধান বলেন, ‘ষাঁড় দুটি জন্মের পর থেকেই আমি লালন পালন করছি। সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে ষাঁড় দুটিকে লালন পালন করেছি। প্রতিটি গরুকে দেশীয় পদ্ধতিতে ও দেশীয় খাবার যেমন- ছোলার ভূষি, মসুরির ভূষি, ভুট্টার গুঁড়া, গমের গুঁড়া, গমের ভূষি, ডাব, কাঁচা ঘাস ও খড় খাওয়ানো হয়েছে। গ্রামের বস ছাড়াও তার কাছে ছোট-বড় আরও চারটি গরু রয়েছে বলে জানান রাজিব।

বেলাব উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ শরীফ জানান, আমরা “গ্রামের বস” ও “গ্রামের বাবু” ষাঁড় দুটির খোঁজ খবর নিয়ে অনলাইনে বিক্রির ব্যবস্থা করে দেয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবো। যাতে খামারী ন্যায্য মূল্য পান।